• শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০৯:৫৯ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
গৃহহীন অসহায় মমতাজকে টিম হাসিমুখের ঘর উপহার! বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে ঢাকাসহ সারাদেশে যুবলীগের বিক্ষোভ দেশজুড়ে দৃষ্টিনন্দন ইসলামি ভাস্কর্য রামগঞ্জে দল্টা বাঙ্গালী ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পিং নকল আওয়ামী লীগের ভিড়ে হারিয়ে যাচ্ছে আসল আওয়ামীলী লীগ’ বসুরহাট পৌরসভার জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ আবদুল কাদের মির্জা ‘তুরস্কের আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে’ যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার থানায় জিডি ভাস্কর্য বিরোধীতার আগে শিশু বলাৎকার বন্ধ করুন: ডা. জাফরুল্লাহ কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন

নিউইয়র্কে করোনায় মৃতদের গণকবর দেওয়া হচ্ছে

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২০

বিশ্বের অন্য কোনো দেশে অত মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়নি যতটা হয়েছে শুধু যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে। প্রকাশিত ছবির বরাতে ব্রিটিশ সংভাদমাধ্যম বিবিসি শুক্রবারের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, নিউইয়র্ক শহরে যারা করোনায় মারা যাচ্ছেন তাদের গণকবর দেওয়া হচ্ছে।

নিউইয়র্কে প্রতিদিন শত শত মানুষ করোনায় প্রাণ হারাচ্ছেন। বিরাট গণকবরে একসঙ্গে অনেক মানুষকে কবর দেয়া হচ্ছে, ড্রোন দিয়ে তোলা এমন ছবি ও ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে বিশ্বের গণমাধ্যমগুলোতে।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, মুখ থেকে শুরু করে পা পর্যন্ত ঢাকা ‌‘হ্যাজমাট’ স্যুট পরা কর্মীদের কাজ করতে দেখা যাচ্ছে বিরাট এক গণকবরে। তারা মই দিয়ে সেই কবরে নামছে, একটার পর একটা কফিন সেখানে রাখছে।

এই কবরস্থানটি নিউইয়র্কের হার্ট আইল্যান্ডে অবস্থিত। সাধারণত যেসব মৃত ব্যক্তির কোন আত্মীয়-স্বজনের খোঁজ পাওয়া যায় না বা যাদের শেষ কৃত্যানুষ্ঠানের খরচ দেয়ার সাধ্য নেই, তাদেরই এখানে কবর দেয়া হয়।

নিউইয়র্কের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি এখন ভয়ংকর রূপ ধারণ করেছে। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত পাওয়া হিসাব অনুযায়ী, শুধু নিউইয়র্কে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৫৯ হাজার ৯৩৭ জন। আক্রান্তদের সাত হাজারের বেশি রোগী মারা গেছে।

অন্যদিকে স্পেনে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ১ লাখ ৫৩। ইতালিতে তা ১ লাখ ৪৩ হাজার। পুরো যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ৪ লাখ ৬২ হাজারের বেশি। প্রাণ হারিয়েছেন সাড়ে ১৬ হাজারের বেশি মানুষ।ড্রোনে তোলা গণকবরের ছবি ও ভিডিও ফুটেজ

নিউইয়র্কের হার্ট আইল্যান্ড গত দেড়শ বছর ধরেই গণকবরের জন্য ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ড্রোনে তোলা ছবিতে যেসব কফিন দেখা যাচ্ছে, তার বেশিরভাগই করোনাভাইরাসে মারা যাওয়া মানুষের, এমন সম্ভাবনাই বেশি বলে মনে করা হচ্ছে।

করোনাভাইরাসের মহামারি শুরু হওয়ার পর এই জায়গায় গণকবর খোঁড়া হচ্ছে। আগে যেখানে সপ্তাহে একদিন হয়তো পরিচয়বিহীন কোনো মরেদহ সৎকার করা হতো। এখন সেখানে সপ্তাহে পাঁচদিন খনন কাজ চলছে।

সাধারণত রিকার্স আইল্যান্ডের কারবন্দিদের দিয়ে কবর খোঁড়ানো হয়। কিন্তু এখন যেহেতু অনেক বেশি কবর খুঁড়তে হচ্ছে, তাই এই কাজ দেয়া হয়েছে ঠিকাদারদের।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/