• বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ১১:৩৬ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
গৃহহীন অসহায় মমতাজকে টিম হাসিমুখের ঘর উপহার! বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে ঢাকাসহ সারাদেশে যুবলীগের বিক্ষোভ দেশজুড়ে দৃষ্টিনন্দন ইসলামি ভাস্কর্য রামগঞ্জে দল্টা বাঙ্গালী ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পিং নকল আওয়ামী লীগের ভিড়ে হারিয়ে যাচ্ছে আসল আওয়ামীলী লীগ’ বসুরহাট পৌরসভার জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ আবদুল কাদের মির্জা ‘তুরস্কের আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে’ যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার থানায় জিডি ভাস্কর্য বিরোধীতার আগে শিশু বলাৎকার বন্ধ করুন: ডা. জাফরুল্লাহ কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন

বাড়ি লকডাউনলক্ষ্মীপুরে করোনা উপসর্গে বৃদ্ধের মৃত্যু, এলাকায় আতঙ্ক!

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২ এপ্রিল, ২০২০

অ আ আবীর আকাশ,লক্ষ্মীপুর: করোনা উপসর্গে বৃদ্ধের মৃত্যু হলে ওই বাড়ি লকডাউন করে প্রশাসন। লক্ষ্মীপুরে জর, সর্দি ও ডায়রিয়া নিয়ে ৭০ বছর বয়সী এক বৃদ্ধ মারা যাওয়ার ঘটনায় একটি বাড়ি লকডাউন করেছে প্রশাসন। বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) সকাল ১১ টার দিকে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আজিজুর রহমান মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
পুলিশ জানায়, বুধবার (১ এপ্রিল) বিকেলে সদর উপজেলার দালাল বাজারের ৫ নম্বর ওয়ার্ডে এক বৃদ্ধ মারা যান। বৃহস্পতিবার সকালে তার মরদেহ দাফন করা হয়। তবে মৃত্যুর সময় ওই বৃদ্ধের শরীরে জ্বর, সর্দি ও ডায়রিয়া ছিল। এগুলো করোনা উপসর্গ হওয়ায় খবর পেয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের সমন্বয়ে পুলিশ ওই বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছে। ওই বাড়িতে ১৫ টি পরিবার থাকে। পরবর্তী নির্দেশনা পর্যন্ত সবগুলো পরিবার লকডাউনে থাকবে।
সদর মডেল থানার (ওসি) একেএম আজিজুর রহমান মিয়া বলেন, করোনা উপসর্গ নিয়ে ওই বৃদ্ধ মারা গেছেন। এ কারণে স্বাস্থ্য বিভাগের সমন্বয়ে তাদের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছ।
বৃহস্পতিবার সকালে সর্তকতার সাথে বৃদ্ধের দাফন সম্পন্ন হওয়ার বিষয় সাংবাদিকদের নিশ্চিত করে সিভিল সার্জন ডাঃ আবদুল গাফ্ফার জানান, নিহত বৃদ্ধ কয়েকদিন থেকেই অসুস্থ্য। তাকে বাড়িতে রেখে ফোনের মাধ্যমে চিকিৎসা দেয়া হয়েছিলো। গতকাল বুধবার তার অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। জরুরী বিভাগের চিকিৎসাধীন অবস্থায়ই তার মৃত্যু হয়। করোনা সঠিক নিশ্চিত হওয়ার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইসিডিআর) পাঠানো হয়েছে।
তিনি আরো জানান, নিহত বৃদ্ধের দুই ছেলে ও দুই ভাতিজা ইতালী প্রবাসী। এদের মধ্যে দুই ভাতিজা বাড়িতে আসেন। এসময় তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়। আশঙ্কা করা হচ্ছে অসচেতন ভাবে তাদের সাথে সাক্ষাৎ হয়ে থাকতে পারে। তবে বৃদ্ধার মৃত্যু পর ওই এলাকার দুটি দোকানসহ একটি বাড়ির ১৫টি পরিবারকে লকডাউন করা হয়েছে। আইইসিডিআর এর প্রতিবেদন নিশ্চিত হওয়ার পর পুরো এলাকা লকডাউন করা হতে পারে বলে জানান তিনি।
প্রসঙ্গত, লক্ষ্মীপুরের পাঁচ উপজেলায় এ পর্যন্ত ১৫৭০ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদের মধ্যে কোয়ারেন্টাইন শেষে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে ১২৮৯ জনকে। তবে বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ২৮১ জন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/