• সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৪৫ অপরাহ্ন

লক্ষ্মীপুরে ২৪ ঘন্টায় হোম কোয়ারেন্টাইনে ১১৫ জন

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৮ মার্চ, ২০২০

অ আ আবীর আকাশ,লক্ষ্মীপুর: নবেল করোনা ভাইরাস সংক্রম প্রতিরোধে লক্ষ্মীপুরে গত চব্বিশ ঘন্টায় ১১৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। শনিবার (২৮ মার্চ) সকাল ১১টা পর্যন্ত এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী।
সিভিল সার্জন জানান, লক্ষ্মীপুর একটি প্রবাসী অধ্যূষিত এলাকা। এ জেলায় এখন পর্যন্ত করোনা পজেটিভ কোন রোগী পাওয়া যায়নি। তবে এ পর্যন্ত ১৩২৬ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। এর মধ্যে হোম কোয়ারেন্টাইনে শেষ হয়েছে ৭১৪ জনের। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৬১২ জন এবং বাকী একজনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।
তিনি আরো জানান, শুষ্ক কাশি, জ্বর, সর্দির সাথে বিদেশ ভ্রমন বা বিদেশ ফেরতদের সাথে সংশ্লেষ থাকায় এ পর্যন্ত ৪ জনের সোয়াব টেষ্ট করতে আইইডিসিআর এ পাঠানো হয়েছে। ৩ জনের রেজাল্ট নেগেটিভ পাওয়া গেছে। তবে এক জনের রেজাল্ট পেন্ডিং হওয়ায় কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।
এছাড়াও করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় জেলায় আইসোলেশন এর জন্য প্রস্তুত রাখা আছে ১০০ বেড। এর মধ্যে সদর হাসপাতাল ৪০, রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ২০, রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ২০, কমলনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-২০ টি বেট প্রস্তুত রয়েছে।
এদিকে করোনা ভাইরাস সংক্রামন রোধে সন্ধ্যা ৬টার পর থেকে জেলায় ঔষধের দোকান ব্যতীত সবধরণের দোকান ও কাঁচাবাজার বন্ধ রাখার বিশেষ ঘোষণা দেন জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্রপাল। এসময় সার ও কীটনাশকের দোকান সকাল ৯টা হতে দুপুর ১টা পর্যন্ত খোলা রাখার নির্দেশ দেন তিনি।
বিশেষ ঘোষণায় জানানো হয়, যানবাহনসহ বিভিন্ন দোকানপাট বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেওয়া হলেও বিভিন্ন দোকানপাট ও রাস্তায় মানুষের আড্ডা ও চলাচল করতে দেখা যায়। করোনা সংক্রামক থেকে এ জেলার মানুষকে মুক্ত রাখতে পণ্যবাহী ট্রাক ছাড়া সকল প্রকার যানবাহন (বাস, রিক্সা, অটোরিক্সা, সিএনজি ও মোটরসাইকেল), হোটেল, রেস্টুরেন্ট ও চায়ের দোকান, পৌরসভা সহ সকল ইউনিয়ন পর্যায়ে হাট বাজার বন্ধ থাকবে নির্দেশনা দেওয়া হয়।
জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্রপাল জানান, করোনা প্রতিরোধে জেলায় সেনাবাহিনীর সদস্যরা কাজ করছে। সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সচেতন হতে হবে। এজন্য কোন প্রকার গুজবে কান দেয়া যাবে না। গুজব প্রচারকারীদের বিরুদ্ধে আইননানুগ ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি।
প্রসঙ্গত, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ইতোমধ্যে খাবার ও ঔষধের দোকান ব্যতীত সব দোকান ও যানবাহন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। তবে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত উপরোক্ত নির্দেশনা মানার আহ্বান জানান জেলা প্রশাসক।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/