• শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৭:৩৩ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
রামগঞ্জে দল্টা বাঙ্গালী ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পিং নকল আওয়ামী লীগের ভিড়ে হারিয়ে যাচ্ছে আসল আওয়ামীলী লীগ’ বসুরহাট পৌরসভার জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ আবদুল কাদের মির্জা ‘তুরস্কের আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে’ যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার থানায় জিডি ভাস্কর্য বিরোধীতার আগে শিশু বলাৎকার বন্ধ করুন: ডা. জাফরুল্লাহ কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন কোম্পানীগঞ্জে ঋণের দায়ে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা! ডুবাইয়ে ইস্কান্দার মির্জা শামীমকে সম্মাননা প্রদান বিকাশ প্রতারকের সঙ্গে প্রেম করে টাকা উদ্ধার করলেন কলেজছাত্রী

কোম্পানীগঞ্জে এমপিও ভুক্তিকে পুঁজি করে শরাফতিয়া মাদ্রাসায় শিক্ষক নিয়োগের পায়তারা!

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১ মার্চ, ২০২০


নুর উদ্দিন মুরাদ:
নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে এমপিও ভুক্তিকে পুঁজি করে অর্থের বিনিময়ে সরকারী নীতি অমান্য করে শিক্ষক নিয়োগের অভিযোগ উঠেছে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির বিরুদ্ধে!

এলাকাবাসীর কাছ থেকে জানা যায়, ১৯৮০ সালে স্থানীয় শিক্ষানুরাগী ড. এ এস এম আব্দুর রহিম মাদরাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই সুনামের সাথে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল মাদরাসাটি। এ মাদরাসা পরিচালানার জন্য জামেয়া শরাফতিয়া ইসলামিয়া ট্রাস্ট নামে একটি ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করা হয়। ২০০৫ সালে মাদরাসায় মাওলানা শহীদ উল্যাহ নামে একজন শিক্ষককে প্রভাষক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। শহীদ উল্যাহ ছিল মাদ্রাসা সভাপতি ড. আমিন উল্যাহ’র ছাত্র। প্রভাষক শহীদ উল্যাহকে ট্রাষ্টের প্রশাসনিক সেক্রেটারি দায়িত্ব দেয়া হয়।
এসময় অভিযোগ উঠে,সে মাদরাসার অর্থনৈতিক বিষয়ে ব্যাপক অনিয়মে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে তার অনিয়ম চরম আকার ধারন করলে মাদরাসা কর্তৃপক্ষ তাকে ১০ মার্চ ২০১৪ তারিখে চাকরি থেকে বরখাস্ত করে।এরপর সে ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সৌদি আরব পাড়ি জমায়।মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটি বিষয়টিতে গোপনীয়তার আশ্রয় নিলেও ২২ জুলাই ২০১৬ তারিখে বিভিন্ন অনলাইন ও প্রিন্ট মিডিয়ায় বিষয়টি প্রকাশিত হয়।প্রকাশিত হওয়ার পর তিনি ৫ আগষ্ট, ২০১৬ তারিখে তার Abu Zarir Shohid নামে ব্যাক্তিগত ফেসবুক আইডি থেকে সৌদীতে অবস্থান করছেন জানিয়ে বিষয়টির ক্ষেত্রে নিজস্ব মতামত দেন।এসময় দীর্ঘ পাঁচ বছরের বেশি তিনি সৌদী আরবে চাকুরিরত অবস্থায় ছিলেন। ২০১৯ সালে প্রতিষ্ঠানটি এমপিও ভুক্ত করে সরকার। এর কয়েক মাস পরে সে দেশে আসেন এবং ড.আমিন উল্যাহ সহ কতিপয় প্রভাবশালী ব্যাক্তির মাধ্যমে পুনঃ নিয়োগ এবং তিনি নিরবিচ্ছিন্ন ভাবে প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করেছেন এমন তথ্য সাজানোর চেষ্টা করছেন।

এ বিষয়ে মাদ্রাসাটির প্রিন্সিপাল রুহুল আমিনের কাছে জানতে চাইলে নিয়োগের প্রকৃয়া চলছে একথার সত্যতা স্বিকার করে বলেন, বিষয়টিতে আমার কোনো ভুমিকা নেই। কমিটি জানে বিষয়টি।

কমিটির সভাপতি ড.আমিন উল্যাহর কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে কথা বলতে অনিচ্ছুক বলে জানান।

অন্যদিকে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শাহ্ কামাল পারভেজ জানান, এরকম কাউকে নিয়োগের সুযোগ নেই।কেউ এমন চেষ্টা করলে এবং তথ্য প্রমানিত হলে নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/