• সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০১:০৯ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
গৃহহীন অসহায় মমতাজকে টিম হাসিমুখের ঘর উপহার! বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে ঢাকাসহ সারাদেশে যুবলীগের বিক্ষোভ দেশজুড়ে দৃষ্টিনন্দন ইসলামি ভাস্কর্য রামগঞ্জে দল্টা বাঙ্গালী ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পিং নকল আওয়ামী লীগের ভিড়ে হারিয়ে যাচ্ছে আসল আওয়ামীলী লীগ’ বসুরহাট পৌরসভার জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ আবদুল কাদের মির্জা ‘তুরস্কের আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে’ যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার থানায় জিডি ভাস্কর্য বিরোধীতার আগে শিশু বলাৎকার বন্ধ করুন: ডা. জাফরুল্লাহ কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন

চীন থেকে আর কাউকে বাংলাদেশে ফেরত আনা হবে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জাহিদ মালেক বলেছেন, চীন থেকে আর কাউকে ফেরত আনা হবে না। কেউ অসুস্থ হলে সেই দেশেই চিকিৎসা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

আজ (বৃহস্পতিবার) দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত প্রেস ব্রিফিংকালে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আত্মীয়-স্বজন ও দেশের স্বার্থে উহানসহ চীনের করোনাভাইরাস আক্রান্ত এলাকায় থাকা বাংলাদেশি নাগরিকদের দেশে ফিরতে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে।’

চীনা নাগরিকদের সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘চীনা নাগরিকদের বাংলাদেশে আসতে হলে ভিসা নেয়ার পাশাপাশি মেডিকেল সার্টিফিকেট দেখাতে হবে। এছাড়া অন-অ্যারাইভ্যাল ভিসায় কেউ প্রবেশ করতে পারবে না।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে বর্তমানে একজনও করোনাভাইরাস রোগী নাই। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশের স্বাস্থ্যখাতে পূর্ণ সজাগ রয়েছে। ইতোমধ্যে দেশের সকল নৌ, স্থল ও বিমান বন্দরে প্রয়োজনীয় স্ক্যানিং মেশিন বসানো হয়েছে। স্বল্প সময়ে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য পর্যাপ্ত কিটস আমদানি করা হয়েছে।  হাসপাতাল, চিকিৎসক, নার্স প্রস্তুত। করোনাভাইরাস দেখা দিলে তা ছড়িয়ে যাওয়া রোধে সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

এদিকে, আজ দুপুরে পৃথক এক সংবাদ সম্মেলনে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর পক্ষ থেকে জানানো হয়, হজ ক্যাম্প থেকে বিভিন্ন কারণে যাদের কুর্মিটোলো হাসপাতাল ও সিএমএইচে নেয়া হয়েছিল সবাই সুস্থ আছেন। চীন দেশ থেকে আসলেই সবাই যে ভাইরাস আক্রান্ত এমনটি মনে না করারও পরামর্শ দেন সংস্থাটির পরিচালক ডা. মীরজাদী সাব্রিনা ফ্লোরা।  

অন্যদিকে, বিমানবন্দরে কর্মরত একজন স্বাস্থ্যকর্মী জানান, আগত যাত্রীদের শরীরের তাপ পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে এবং তাদের স্বাস্থ্য ও ভ্রমণ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। 

উল্লেখ্য, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে গতকাল একদিনেই আরও ৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চীনের মূল ভূখণ্ড ও এর বাইরে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৬৩ জনে। গতকাল চীনে নতুন করে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে আরও প্রায় তিন হাজার মানুষ। 

এদিকে, করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত সংকটের কারণে বাংলাদেশের বাণিজ্য ক্ষেত্রে সম্ভাব্য প্রভাব পর্যালোচনা করে বাংলাদেশ সরকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

দেশের আমদানি ও রপ্তানির সাথে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে বাণিজ্য সচিব আজ একটি বৈঠক করেছেন। সংশ্লিষ্ট সকলকে এ বিষয়ের উপর নজর রাখার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। আগামী তিন দিনের মধ্যে এফবিসিসিআই চীনের সাথে বাণিজ্য বিষয়ে একটি প্রতিবেদন তৈরী করবে। এ প্রতিবেদনের উপর সরকার পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করবে।

এ প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী আজ নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের জানান, তৈরি পোশাক খাতের কাঁচামালসহ অন্যান্য পণ্য আমদানি-রপ্তানির ক্ষেত্রে এ মুহূর্তে কোন সমস্যা নেই। করোনাভাইরাস সমস্যা দীর্ঘায়িত হলে চিন্তা করতে হবে। চীনের সাথে যেগুলো সেক্টরে বাণিজ্য রয়েছে বিশেষ করে বিজিএমইএ এবং বিকেএমইএসহ সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীগণও বিষয়টি পর্যালোচনা করছেন। যথাসময়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।#

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/