• শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ১০:৫২ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
গৃহহীন অসহায় মমতাজকে টিম হাসিমুখের ঘর উপহার! বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে ঢাকাসহ সারাদেশে যুবলীগের বিক্ষোভ দেশজুড়ে দৃষ্টিনন্দন ইসলামি ভাস্কর্য রামগঞ্জে দল্টা বাঙ্গালী ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পিং নকল আওয়ামী লীগের ভিড়ে হারিয়ে যাচ্ছে আসল আওয়ামীলী লীগ’ বসুরহাট পৌরসভার জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ আবদুল কাদের মির্জা ‘তুরস্কের আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে’ যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার থানায় জিডি ভাস্কর্য বিরোধীতার আগে শিশু বলাৎকার বন্ধ করুন: ডা. জাফরুল্লাহ কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন

ছোট ফেনী নদী সেতু ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধন।

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১ নভেম্বর, ২০১৮

নুর উদ্দিন মুরাদ:
নোয়াখালীবাসীর দীর্ঘদিনের প্রতীক্ষিত সোনাপুর-জোরালগঞ্জ সড়কের “ছোট ফেনী নদীর” উপর নির্মিত
৪৭৮ মিটার দৈর্ঘ্যের ছোট ফেনী নদী সেতু উদ্বোধন করলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।

১ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা প্রশাসক জনাব তন্ময় দাস ও পুলিশ সুপার জনাব ইলিয়াস শরীফ ও সাংবাদিক দের উপস্থিতিতে ভিড়িও কনফারেন্সের মাধ্যমে সেতু উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অবহেলিত নোয়াখালী, ফেনী ও চট্রগ্রামের উপকূলীয় অঞ্চলে অচিরেই যোগাযোগ ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তন ঘটতে যাচ্ছে। এটি চালু হওয়ায় নোয়াখালীর কয়েক লক্ষাধিক অধিবাসী উপকৃত হবে। এতে করে সময় ও অর্থ দু’টোর সাশ্রয় হবে। এতদ্বঞ্চলের লাখ লাখ যাত্রী নোয়াখালীর সোনাপুর থেকে চৌমুহনী-ফেনী হয়ে সড়ক পথে চট্রগ্রাম যাতায়াতে ৫/৬ ঘন্টা সময় অতিবাহিত হয়। সোনাপুর-জোরালগঞ্জ সড়ক চালু হওয়ায় বন্দর নগরী চট্রগ্রামের সাথে মাত্র দুই ঘন্টায় যোগাযোগ সম্ভব।

উল্লেখ্য,প্রকল্প এতে ব্যয় নির্ধারন করা হয়েছে ২৪৬ কোটি টাকা।বিগত ২০১৫-১৬ অর্থ বছরে সড়কটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়। সেতুটি চালু হওয়ায় দুই পার্শ্বে শত শত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প কারখানা গড়ে উঠবে। ইতিমধ্যে সড়কের পাশে জমির মূল্য বৃদ্বি পেয়েছে। বিভিন্ন শিল্পোদ্যোক্তা সম্ভাব্য স্থানগুলো পরিদর্শন করেন।

উল্লেখ্য,এখান থেকে উৎপাদিত পণ্য সামগ্রী মাত্র দুই আড়াই ঘন্টায় চট্রগ্রাম বন্দরে সরবরাহ সম্ভব । সড়ক ও সেতু নির্মাণের শুরু থেকে সোনাপুর থেকে চট্রগ্রামের জোরালগঞ্জ পর্যন্ত সড়কের দুই পার্শ্বের হাজার হাজার মানুষের মধ্যে খুশীর জোয়ার বইছে। বহুল প্রতীক্ষিত গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি চালু হওয়ার পাশাপাশি এতদ্বঞ্চলের প্রায় চার লক্ষাধিক অধিবাসীর বাড়তি আয়ের সূযোগ সৃষ্টি হবে বলে মনে করে বিশিষ্টজন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/