• শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:০৯ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
সালাউদ্দিন কে সরাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়! জনতার রাজনীতির এক যোদ্ধার নাম সম্রাট সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা জুয়েলকে যুক্তরাষ্ট্রস্থ কোম্পানীগঞ্জবাসীর সংবর্ধনা! ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ড একটি জাতিগোষ্ঠী ও জাতিসত্তাকে গণহত্যার সামিল রামগঞ্জে ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত মুজিববর্ষ উপলক্ষে নোয়াখালীতে ছাত্রলীগের উদ্যোগ বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি ২১ শে আগস্ট ও বিএনপির ঐতিহাসিক বিচারহীনতার চরিত্র কোম্পানীগঞ্জসহ আরও ১০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলের স্থান চূড়ান্ত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা: কী ঘটেছিল সেই দিন বঙ্গবন্ধু বিশ্বের মুক্তিকামী সকল মানুষের রাজনৈতিক আদর্শ

তাবিথের উপর হামলার নেপথ্যে বিএনপির কর্মী-সমর্থক (ভিডিওসহ)

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২০

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর গাবতলী এলাকায় নির্বাচনী প্রচার চালানোর সময় তাবিথ আউয়ালের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারীরা স্থানীয় ওয়ার্ড বিএনপির মনোনয়ন বঞ্চিত কাউন্সিলর প্রার্থী ও তার সমর্থক।

আজ বেলা ১১টার দিকে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল গাবতলী বাসস্ট্যান্ডের পেছনে বাজারপাড়া এলাকায় নির্বাচনী প্রচার শুরু করেন। এলাকাটি উত্তর সিটি করপোরেশনের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যে পড়েছে। 

গণসংযোগ শুরুর পরপরই লাঠিসোঁটা নিয়ে তাদের পেছন থেকে হামলা করেন একদল লোক। এতে তাবিথসহ তার সঙ্গে থাকা ৪-৫ জন কর্মী-সমর্থক আহত হন। 
স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তাবিথ আউয়ালের উপর হামলাকারীরা ৯ নং ওয়ার্ড বিএনপি  নেতা লাবিব আহমেদের কর্মী ও সমর্থক। কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন না পাওয়ায় ক্ষোভ থেকেই এই হামলা করেছেন তিনি ও তার কর্মীরা।

জানা যায়,  ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ৯ নং ওয়ার্ড থেকে বিএনপির কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন লাবিব আহমেদ। তাকে মনোনয়ন না দিয়ে মো. সাইদুল ইসলামকে মনোনয়ন 

দেয়া হয়েছে।  মনোনয়ন বঞ্চিত হওয়ার ক্ষোভ থেকে এ হামলা করা হয়েছে বলছেন স্থানীয় বিএনপির কর্মীরা।

হামলার জন্য যদিও তাবিথ আউয়াল আওয়ামী লীগকে দুষছেন, ফুটেজ বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে এরা সবাই আসলে স্থানীয় বিএনপির নেতা-কর্মী। 

লাল গোল চিহ্নিত হামলাকারী ব্যক্তিরা হলেন: সাদ্দাম হোসেন (৯ নং ওয়ার্ড বিএনপি কর্মী), হাসিব উদ্দিন (স্থানীয় ছাত্রদল নেতা),  মোঃ হানিফ (স্থানীয় বিএনপি কর্মী), লাবিব আহমেদ, তিনি হামলায় নেতৃত্বদানকারী, ৯ নং ওয়ার্ড থেকে বিএনপির কাউন্সিলর মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন।

ঘটনাস্থলে থাকা বিএনপির কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘হামলাকারীদের পরিচয় সম্পর্কে আমি নিশ্চিত নই।’

হামলার পর ওই এলাকা ত্যাগ করে ১১ নম্বর ওয়ার্ডের দিকে চলে যান তাবিথ ও তার সঙ্গে থাকা কর্মী-সমর্থকেরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/