• সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:০০ অপরাহ্ন

মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার প্রথম ভিডিও প্রকাশ

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২০

ইরাকের ভূখণ্ডে অবস্থিত মার্কিন সামরিক ঘাঁটি আইন আল-আসাদে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি গত ৮ জানুয়ারি যে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে তার ক্ষয়ক্ষতি তুলে ধরে মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল সিএনএন সর্বপ্রথম ভিডিও প্রকাশ করেছে। ইরানের কুদস ফোর্সের কমান্ডার মেজর জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধ নিতে ইরান মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় মার্কিন সেনাদের ড্রয়িং রুম ও এবং শোয়ার কোয়ার্টারগুলো ধ্বংস হয়ে গেছে। ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর এসব ভবনে আগুন ধরে যায় এবং পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মার্কিন সেনাদের জীবন বাঁচানোর কথা ইরান চিন্তাই করে নি। ঘাঁটির যেসব জায়গায় ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হেনেছে তাতে মার্কিন সেনাদের হতাহতের ঘটনা অনেক বেশি হতে পারতো। সিএনএনের রিপোর্টে বলা হয়েছে, ইরান প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে হামলা চালায় এবং আইন আল-আসাদ ঘাঁটির যে অংশে শুধুমাত্র মার্কিন সেনারা ছিল সেই অংশে ইরান হামলা চালিয়েছে। এতে ওই ঘাঁটির প্রায় এক-চতুর্থাংশ এলাকা ইরানি হামলার শিকার হয়েছে। স্থানীয় সময় রাত ১টা ৩৪ মিনিটে প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানে। এরপর ১৫ মিনিট মতো বিরতি দিয়ে পরবর্তীতে দুই ঘন্টা হামলা চলে।

 

মার্কিন সেনা কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কর্নেল স্টাসি কলেমস্যান দাবি করেন, আগাম সতর্কবার্তা পেয়ে ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানার আগেই আমেরিকার সেনারা বাংকারে আশ্রয় নেয়। সিএনএন’র রিপোর্টে আইন আল-আসাদ ঘাঁটির পুরোটা নয় বরং সামান্য একটা অংশের ক্ষয়ক্ষতি দেখানো হয়েছে। তাতেই পরিষ্কার হয়েছে যে, ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে ওই ঘাঁটি। তবে ইরানি হামলায় আমেরিকার সেনাদের হতাহতের পরিষ্কার কোনো চিত্র তুলে ধরে নি সিএনএন। 

ইরান যে হামলা চালিয়েছে তার একটি ক্ষেপণাস্ত্রও মার্কিন সেনারা শণাক্ত কিংবা ভূপাতিত করতে পারে নি। ইরাকের সংসদ সদস্য নাঈম আল-আবুদি লেবাননের আল-মায়াদিন টেলিভিশন চ্যানেলকে জানিয়েছেন, ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় আইন আল-আসাদ ঘাঁটির মার্কিন অংশ সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস হয়েছে। লেবাননের আল-মায়াদিন টেলিভিশন জানিয়েছে, ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর মার্কিন সেনারা ইরাকি সেনাদের সেখানে যেতে বাধা দিয়েছে।

হাসান সালিম নামে ইরাকের আরেকজন সংসদ সদস্য আল-ফোরাত টিভি নেটওয়ার্ককে জানান, ইরানি ক্ষেপণাস্ত্র হামলাকে অনেকটা ভূমিকম্পের মতো মনে হচ্ছিল। হামলায় মার্কিন সামরিক ঘাঁটির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে এবং বহু মার্কিন সেনা হতাহত হয়। হতাহত সেনাদেরেকে ইসরাইলে নেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।#

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/