• বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:১৪ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
‘তুরস্কের আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে’ যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার থানায় জিডি ভাস্কর্য বিরোধীতার আগে শিশু বলাৎকার বন্ধ করুন: ডা. জাফরুল্লাহ কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন কোম্পানীগঞ্জে ঋণের দায়ে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা! ডুবাইয়ে ইস্কান্দার মির্জা শামীমকে সম্মাননা প্রদান বিকাশ প্রতারকের সঙ্গে প্রেম করে টাকা উদ্ধার করলেন কলেজছাত্রী কোম্পানীগঞ্জে অটোরিকশা চাপায় স্কুল ছাত্র নিহত! চিফ হুইপের নামে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে প্রতারণা, গ্রেফতারকৃত জাহিদ ৩ দিনের রিমান্ডে মামুনুল ও ফয়জুলের গ্রেপ্তারের দাবিতে শাহবাগ অবরোধ

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আলোচনা হবে খোলা মনে: ওবায়দুল কাদের

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৮

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আগামী নির্বাচনের আগে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে তিনটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করবে বলে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও শ্রমমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ওবায়দুল কাদের পরিষ্কারভাবে বলেন, এই সংলাপ সরকারের সঙ্গে নয়, আওয়ামী লীগের সঙ্গে সংলাপ।

আওয়ামী লীগ সভাপতির সঙ্গে সংলাপে আলোচনা হবে। তারা আওয়ামী লীগের সাথে কথা বলতে চেয়েছিলেন। মঙ্গলবার (30 অক্টোবর)সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে তিনি বলেন, তারা সাংবিধানিক সংশোধন, স্তরের খেলার ক্ষেত্র এবং সমাবেশে সমান অধিকার নিয়ে আলোচনা করতে চায়।

ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তারা সাত দফা দাবি এবং 11 টি লক্ষ্য নিয়ে আলোচনা করতে চায়। তাদেরকে আমরা  স্বাগত জানাই। সংবিধান সংশোধনের বিষয়ে তাদের আলোচনার তালিকা রয়েছে। আইন ও আদেশ সম্পর্কিত কয়েকটি বিষয় রয়েছে।

আবারো, দুই অঞ্চলের নির্বাচন কমিশনের আধিকারিকরা আমাদের কথোপকথন সম্পর্কে যা বলেছিলেন তা হল আমাদের সরকার ও দলটির নীতি। এবং তারা তাদের বিষয় সম্পর্কে কথা বলতে হবে। ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, আরেকটি বিষয় রয়েছে, যা বিদেশি পর্যবেক্ষক। যা গ্রহণে কোন আপত্তি নেই। কিন্তু আমরা কি গ্রহণ করতে পারি না নির্বাচন কমিশন।

কিন্তু যখন প্রধানমন্ত্রী চান, তাহলে আলোচনাটি খোলা হবে  খোলা মেলা।

ঐক্যফ্রন্টের নেতা মুস্তাফা মহসিন মিন্টুর সঙ্গে আলাপের বিষয়ে  কাদের বলেন, বিভিন্ন সংবাদপত্রের সংবাদ থেকে যেনে ছি যে, আমরা 10 টি নাম প্রস্তাব করেছি। এই সত্য নয়। আমি মুস্তাফা মহসিন মিন্টুর সাথে কথা বলেছি।

আমি জানতে চেয়েছিলাম কত মানুষ আসতে চায়। তিনি বললেন 15 জন। আমি বললাম, কেন 15, যদি আপনি চান ২0-25 পেতে পারেন, তাহলে সংলাপে কতজন লোক থাকবে তার একটি প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আওয়ামী লীগ থেকে কত জন  থাকবে তাতে কোন বাধা নেই। সংলাপে।

মঙ্গলবারে ঐক্য ফন্ট নেতাদের তালিকা দেখে, আমরা সিদ্ধান্ত নেব আমরা কে কে থাকবো।

14  দল একটি স্বরে  কথা বলেন এবং আওয়ামী লীগ সভাপতির  সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ।

এটি কোনো আন্দোলন বা চাপের সাথে সংলাপ নয়, মন্ত্রী বলেন, দেশে বিদ্যমান আন্দোলনমুখর বা আন্দোলনের ঝড় বিদ্যমান নয় এবং সরকার সংলাপে বসতে আগ্রহী।

বিষয়টি হলো, আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আমাদের দলের প্রধান শেখ হাসিনাকে চিঠি দিয়েছেন ড। কামাল হোসেন।

শেখ হাসিনা বলেন, কেউ যদি আমার সাথে দেখা করতে চায় তবে দরজাটা তার জন্য উন্মুক্ত।

সুতরাং এটা নিয়ে আলোচনা করা হবে।

এর আগে শেখ হাসিনা কে সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়ে, রবিবার (২8 অক্টোবর), জাতীয় ঐক্য ফ্রন্ট এর নেতারা আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সরকারের সাথে আলোচনায় জন্য একটি চিঠি দেয়।

সোমবার (২9 অক্টোবর) মন্ত্রিপরিষদের বৈঠক শেষে আওয়ামী লীগ দলীয় শীর্ষ নেতাদের নিরপেক্ষ বৈঠকে সংলাপের আহবান জানানোর সিদ্ধান্ত নেয়।

এ সিদ্ধান্তে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার চিঠি, আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ  ড। কামাল হোসেনের বাসায়  পৌঁছে দেন ।

চিঠি তে বলা হয়, 1 নভেম্বর সন্ধ্যা 7 টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি গণভবনে এই সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/