• সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০১:৫৬ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
গৃহহীন অসহায় মমতাজকে টিম হাসিমুখের ঘর উপহার! বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে ঢাকাসহ সারাদেশে যুবলীগের বিক্ষোভ দেশজুড়ে দৃষ্টিনন্দন ইসলামি ভাস্কর্য রামগঞ্জে দল্টা বাঙ্গালী ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পিং নকল আওয়ামী লীগের ভিড়ে হারিয়ে যাচ্ছে আসল আওয়ামীলী লীগ’ বসুরহাট পৌরসভার জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ আবদুল কাদের মির্জা ‘তুরস্কের আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে’ যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার থানায় জিডি ভাস্কর্য বিরোধীতার আগে শিশু বলাৎকার বন্ধ করুন: ডা. জাফরুল্লাহ কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন

বন্ধুর গালে জুতা মারায় বন্ধুকে মেরে লাশ গুম

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৯

নিখোঁজের ১০ দিন পর রংপুরের কাউনিয়া উপজেলায় সেপটিক ট্যাংক থেকে সুমন মিয়া নামে (১৭) এক কিশোরের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধারের রহস্য উন্মোচন করেছে পুলিশ।

বন্ধুর হাতে নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে সুমন মিয়া। হত্যায় জড়িত ডেকোরেটর ব্যবসায়ী তার বন্ধু লিয়নকে (১৮) রোববার (২৯ ডিসেম্বর) রাতে দিনাজপুরের পার্বতীপুর থেকে গ্রেফতার করা হয়। সেই সঙ্গে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্র এবং ছিনতাইকৃত মোবাইল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত লিয়ন হারাগাছ থানার সারাই নিউ কসাইটারি গ্রামের মহির আলীর ছেলে। সোমবার (৩০ ডিসেম্বর) দুপুরে হারাগাছ থানায় সংবাদ সম্মেলন ডেকে এসব তথ্য জানিয়েছেন রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (অপরাধ) শহিদুল্লাহ কাওছার।

তিনি বলেন, সুমন ও লিয়নের মধ্যে দারুণ বন্ধুত্ব ছিল। বন্ধুত্বের কারণে সুমনকে অনেক টাকা ধার দেয় লিয়ন। পরবর্তীতে ধারকৃত টাকা ফেরত চাইলে গড়িমসি শুরু করে সুমন। এ নিয়ে তাদের ঝগড়া হয়। এরই মধ্যে একদিন সুমন নিজের পায়ের জুতা খুলে লিয়নের গালে মারে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে মূলত দ্বন্দ্ব শুরু হয়।

এই দ্বন্দ্ব থেকেই সুমনকে হত্যার পরিকল্পনা করে লিয়ন। পরিকল্পনা অনুযায়ী ১৭ ডিসেম্বর রাতে হারাগাছ পৌরসভার সারাই বায়তুল আমান জামে মসজিদের পেছনে পুকুরের পাড়ে সুমনকে ডেকে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে লিয়ন। এরপর হারাগাছ পৌর এলাকার সারাই বায়তুল আমান জামে মসজিদের পেছনের সেপটিক ট্যাংকের ভেতর মরদেহ গুম করে এবং সুমনের ব্যবহৃত মোবাইল নিয়ে পালিয়ে যায় লিয়ন।

স্থানীয়দের সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) বিকেলে উপজেলার হারাগাছ পৌর এলাকার সারাই বায়তুল আমান জামে মজিদের পেছনের সেপটিক ট্যাংক থেকে সুমনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সুমন সারাই নিউ কাজীপাড়া গ্রামের মৃত রহিম মিয়ার ছেলে।

সুমনের মা শাহানা বেগম বলেন, সুমন ঢাকায় পোশাক কারখানায় কাজ করত। নিখোঁজের কয়েক দিন আগে বাড়িতে আসে। গত ১৭ ডিসেম্বর সারাই ভূমি অফিস মাঠে ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ওই দিন সন্ধ্যায় একই গ্রামের মহির আলীর ছেলে লিমনসহ আরও ২-৩ জন ওয়াজ শোনার জন্য সুমনকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়।

এরপর থেকে সুমনের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। সেই সঙ্গে তার ব্যবহৃত মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজির পর থানায় জিডি করতে গেলে শুক্রবার জুমার নামাজের পর ছেলের মরদেহের সন্ধান পাই।

আজকের সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার কাজী মুত্তাকী ইবনু মিনান ও হারাগাছ থানা পুলিশের ওসি একেএম নাজমুল কাদের প্রমুখ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/