• বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:৪০ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
সালাউদ্দিন কে সরাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়! জনতার রাজনীতির এক যোদ্ধার নাম সম্রাট সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা জুয়েলকে যুক্তরাষ্ট্রস্থ কোম্পানীগঞ্জবাসীর সংবর্ধনা! ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ড একটি জাতিগোষ্ঠী ও জাতিসত্তাকে গণহত্যার সামিল রামগঞ্জে ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত মুজিববর্ষ উপলক্ষে নোয়াখালীতে ছাত্রলীগের উদ্যোগ বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি ২১ শে আগস্ট ও বিএনপির ঐতিহাসিক বিচারহীনতার চরিত্র কোম্পানীগঞ্জসহ আরও ১০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলের স্থান চূড়ান্ত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা: কী ঘটেছিল সেই দিন বঙ্গবন্ধু বিশ্বের মুক্তিকামী সকল মানুষের রাজনৈতিক আদর্শ

সভাপতি শেখ হাসিনা, সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০১৯

সারা বাংলা নেট: সর্বশেষ কাউন্সিলের মতো ২১তম কাউন্সিলেও আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন শেখ হাসিনা, সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ওবায়দুল কাদের। এ নিয়ে শেখ হাসিনা টানা নবমবারের মতো দেশের প্রাচীনতম দলটির সভাপতির দায়িত্ব পেলেন। আর ওবায়দুল কাদের টানা দ্বিতীয় মেয়াদে ধরে রাখলেন শেখ হাসিনার রানিং মেটের পদটি।



শনিবার (২১ ডিসেম্বর) দুপুর ১টার কিছু পর দলের ২১তম জাতীয় কাউন্সিলের কাউন্সিল অধিবেশনে তাদের দলের শীর্ষ এই দুই পদে নির্বাচিত করা হয়।



কাউন্সিল অধিবেশনে আগের সব কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে নতুন নেতৃত্বের জন্য কাউন্সিলরদের আহ্বান জানান শেখ হাসিনা। নির্বাচন কমিশনার অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ূন এই পর্ব পরিচালনা করেন। এসময় আওয়ামী লীগের বিদায়ী কমিটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আব্দুল মতিন খসরু দলের সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনার নাম প্রস্তাব করেন। এ প্রস্তাবে সমর্থন জানান একই কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট পীযুষ কান্তী ভট্টাচার্য। পরে দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ওবায়দুল কাদেরের নাম প্রস্তাব করেন সদ্য বিলুপ্ত কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। তার প্রস্তাবে সমর্থন জানান ওই কমিটির আরেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান।



এরপর কাউন্সিলের নির্বাচন কমিশনার এডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ূন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে যথাক্রমে শেখ হাসিনা ও ওবায়দুল কাদেরের নাম ঘোষণা করেন।



এর আগে, সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হয় আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অধিবেশন। শুরুতেই বক্তব্য রাখেন দল ও অধিবেশনের সভাপতি শেখ হাসিনা। পরে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বক্তব্য রেখে সাধারণ সম্পাদকদের প্রতিবেদন সভাপতির অনুমতিক্রমে পঠিত বলে গণ্য হয়েছে হিসেবে উপস্থাপন করেন। পরে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন শাখা কমিটির নেতারা।


নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/