• শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:১৭ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
কাদের মোল্লাকে ‘শহীদ’ বলায় সংগ্রাম অফিস ভাঙচুর করেছে ক্ষুব্ধ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ নোয়াখালীতে ইয়াবাসহ নারী মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার ফারমিন মৌলীর হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মুক্তিযুদ্ধের মানববন্ধন। মিয়ানমারের রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রকৃয়া একটা প্রতারণা-গাম্বিয়া! ব্রিটেনের সাধারণ নির্বাচনে টিউলিপসহ চার বাংলাদেশির জয় টানা তৃতীয়বারের মতো জয় পেলেন টিউলিপ সিদ্দিক। ফারমিন মালিকে শ্রদ্বা জানিয়ে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মোমবাতি প্রজ্বলন। মোমবাতি প্রজ্বলনের মাধ্যমে ফারমিন মৌলীর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের। নাইজারে সেনাঘাটিতে সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ৭০ মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর জন্মদিন আজ

আবৃত্তি নির্মাণ কৌশল-আবৃত্তিশিল্পী মৃন্ময় মিজান

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০১৯

বিভিন্ন সময় অনেকেই ফোনে বা ইনবক্সে আবৃত্তি বিষয়ক প্রশ্ন করেছেন। এখনো করছেন কেউ কেউ। আগামীতেও হয়ত করবেন অনেকে। তাদের কথা ভেবে আমি এখানে লিখে রাখছি আবৃত্তি নির্মাণের ক্ষেত্রে আমার নিজস্ব ভাবনাগুলোঃ

এক. প্রাক প্রস্তুতিঃ
ক্লাস টেনে নিশ্চয়ই এমন কেউ পড়তে পারে না যার অক্ষরজ্ঞানই নেই। টেনে পড়তে হলে ন্যুনতম যে জ্ঞান এবং যোগ্যতা দরকার সেটাই হল তার পূর্ব প্রস্তুতি।

আবৃত্তির জন্যও দরকার কিছু পূর্ব প্রস্তুতি। সে পূর্ব প্রস্তুতিটুকু থাকলে আপনি কবিতার অর্থ বুঝবেন। বুঝবেন বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার বিভিন্ন বয়সের মানুষ বিভিন্ন প্রেক্ষিতে কিভাবে নিজেকে প্রকাশ করে।

যাদের এই পূর্ব প্রস্তুতিটুকু নেই তাদের জন্য এক কথায় পরামর্শ হল প্রচুর পড়ুন এবং মানুষ ও প্রকৃতিকে গভীরভাবে অধ্যয়ন করুন।

দুই. প্রস্তুতিঃ
এ পর্যায়ে আপনাকে প্রমিত উচ্চারণ জানতে হবে। কবিতার ছন্দ জানতে হবে। ভাব ও রস জানতে হবে। একই সাথে স্বরের বিভিন্ন স্তর এবং টোন কণ্ঠে ফুটিয়ে তুলতে জানতে হবে। আবৃত্তি বিষয়ক বিভিন্ন কর্মশালায় মূলত এই বিষয়গুলো নিয়েই আলোচনা করা হয়।

তিন. নির্মাণঃ
এবার আপনি কবিতা পড়ুন। একবারে না বুঝলে কয়েকবার পড়ুন। কবিতা বুঝার পর আপনার মানসপটে কবিতার চিত্রকল্পগুলো খেয়াল করুন। অর্থাৎ এই কবিতা পড়ার পর আপনার মনে কোন কোন দৃশ্য তৈরি হল সেগুলো ভালভাবে উপলব্ধি করুন। দৃশ্যপট তৈরি না হলে কবিতার সাথে মিলিয়ে মনের মধ্যে দৃশ্যপট তৈরি করুন।

দৃশ্যপট বা চিত্রকল্প তৈরি হয়ে গেলে এবার ভাবুন কবিতা পড়ে আপনার মনের মধ্যে যে দৃশ্যপট তৈরি হল সেই দৃশ্যপট কবিতা শুনিয়ে কিভাবে শ্রোতার মনের মধ্যে তৈরি করা সম্ভব! অথবা এভাবে ভাবুন যে, আপনি যদি কবিতাটি কারো কাছে শুনতে চান তাহলে কিভাবে শুনতে চাইবেন!

অর্থাৎ কবিতার দৃশ্যকল্প যেমন আপনাকে ভাবতে হবে তেমনি এর একটি শ্রুতিরূপও আপনাকে ভাবতে জানতে হবে।

এবার আপনাকে কবিতাটি বার বার পড়ে সেই কাংখিত শ্রুতিরূপে পৌঁছাতে হবে যা শুনে শ্রোতার মনের মধ্যে কবিতার সেই চিত্রকল্পগুলো ভেসে উঠবে যে চিত্রকল্পগুলো আপনার মনের মধ্যেও তৈরি হয়েছিল।

অনেক ক্ষেত্রে কবিতার চিত্রকল্পগুলো ভাবা সম্ভব হলেও শ্রুতিরূপটি ভাবা সম্ভব হয় না। সে ক্ষেত্রে চিত্রকল্পগুলো মাথায় রেখে কবিতাটি বারবার বিভিন্নভাবে পড়তে হবে। আর এভাবেই আপনি পেয়ে যাবেন আপনার কাংখিত শ্রুতিরূপ!

পরিচালক

আবৃত্তি একাডেমি

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..