• বৃহস্পতিবার, ০৬ অগাস্ট ২০২০, ০৬:৩১ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
নিউইয়র্কে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা নুরুল করিম জুয়েলের সাথে নোয়াখালী ছাত্রলীগের মতবিনিময় মাদারীপুরে আড়িয়াল খাঁ নদীর শহর রক্ষা বাঁধের ভাঙন, আতঙ্কে শহরবাসী সবুজ বাংলাদেশ সুবর্ণচর উপজেলা শাখার ঈদ পূর্ণমিলনী ও বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি উদ্বোধন। বিশ্বে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ৫ হাজার ৪শ’ মানুষের মৃত্যু সুবর্ণচর উপজেলা ছাত্রলীগের জন্য এমপি পুত্রের উপহার। ৫০টি অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিবন্ধন পেতে যাচ্ছে কোম্পানীগঞ্জে ছিনতাইয়ের নাটক সাজিয়ে ৯০ লাখ টাকা আত্মসাৎ, বিকাশ ম্যানেজারসহ আটক ২ নোয়াখালীতে কোরবানির পশুর হাটে সচেতনামূলক ক্যাম্পেইন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের নেতা প্রায়ত ওয়াসীর পরিবারের পাশে সিঙ্গাপুর ছাত্রলীগ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের পদত্যাগ

আবৃত্তি নির্মাণ কৌশল-আবৃত্তিশিল্পী মৃন্ময় মিজান

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০১৯

বিভিন্ন সময় অনেকেই ফোনে বা ইনবক্সে আবৃত্তি বিষয়ক প্রশ্ন করেছেন। এখনো করছেন কেউ কেউ। আগামীতেও হয়ত করবেন অনেকে। তাদের কথা ভেবে আমি এখানে লিখে রাখছি আবৃত্তি নির্মাণের ক্ষেত্রে আমার নিজস্ব ভাবনাগুলোঃ

এক. প্রাক প্রস্তুতিঃ
ক্লাস টেনে নিশ্চয়ই এমন কেউ পড়তে পারে না যার অক্ষরজ্ঞানই নেই। টেনে পড়তে হলে ন্যুনতম যে জ্ঞান এবং যোগ্যতা দরকার সেটাই হল তার পূর্ব প্রস্তুতি।

আবৃত্তির জন্যও দরকার কিছু পূর্ব প্রস্তুতি। সে পূর্ব প্রস্তুতিটুকু থাকলে আপনি কবিতার অর্থ বুঝবেন। বুঝবেন বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার বিভিন্ন বয়সের মানুষ বিভিন্ন প্রেক্ষিতে কিভাবে নিজেকে প্রকাশ করে।

যাদের এই পূর্ব প্রস্তুতিটুকু নেই তাদের জন্য এক কথায় পরামর্শ হল প্রচুর পড়ুন এবং মানুষ ও প্রকৃতিকে গভীরভাবে অধ্যয়ন করুন।

দুই. প্রস্তুতিঃ
এ পর্যায়ে আপনাকে প্রমিত উচ্চারণ জানতে হবে। কবিতার ছন্দ জানতে হবে। ভাব ও রস জানতে হবে। একই সাথে স্বরের বিভিন্ন স্তর এবং টোন কণ্ঠে ফুটিয়ে তুলতে জানতে হবে। আবৃত্তি বিষয়ক বিভিন্ন কর্মশালায় মূলত এই বিষয়গুলো নিয়েই আলোচনা করা হয়।

তিন. নির্মাণঃ
এবার আপনি কবিতা পড়ুন। একবারে না বুঝলে কয়েকবার পড়ুন। কবিতা বুঝার পর আপনার মানসপটে কবিতার চিত্রকল্পগুলো খেয়াল করুন। অর্থাৎ এই কবিতা পড়ার পর আপনার মনে কোন কোন দৃশ্য তৈরি হল সেগুলো ভালভাবে উপলব্ধি করুন। দৃশ্যপট তৈরি না হলে কবিতার সাথে মিলিয়ে মনের মধ্যে দৃশ্যপট তৈরি করুন।

দৃশ্যপট বা চিত্রকল্প তৈরি হয়ে গেলে এবার ভাবুন কবিতা পড়ে আপনার মনের মধ্যে যে দৃশ্যপট তৈরি হল সেই দৃশ্যপট কবিতা শুনিয়ে কিভাবে শ্রোতার মনের মধ্যে তৈরি করা সম্ভব! অথবা এভাবে ভাবুন যে, আপনি যদি কবিতাটি কারো কাছে শুনতে চান তাহলে কিভাবে শুনতে চাইবেন!

অর্থাৎ কবিতার দৃশ্যকল্প যেমন আপনাকে ভাবতে হবে তেমনি এর একটি শ্রুতিরূপও আপনাকে ভাবতে জানতে হবে।

এবার আপনাকে কবিতাটি বার বার পড়ে সেই কাংখিত শ্রুতিরূপে পৌঁছাতে হবে যা শুনে শ্রোতার মনের মধ্যে কবিতার সেই চিত্রকল্পগুলো ভেসে উঠবে যে চিত্রকল্পগুলো আপনার মনের মধ্যেও তৈরি হয়েছিল।

অনেক ক্ষেত্রে কবিতার চিত্রকল্পগুলো ভাবা সম্ভব হলেও শ্রুতিরূপটি ভাবা সম্ভব হয় না। সে ক্ষেত্রে চিত্রকল্পগুলো মাথায় রেখে কবিতাটি বারবার বিভিন্নভাবে পড়তে হবে। আর এভাবেই আপনি পেয়ে যাবেন আপনার কাংখিত শ্রুতিরূপ!

পরিচালক

আবৃত্তি একাডেমি

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/