• শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:২২ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
রামগঞ্জে দল্টা বাঙ্গালী ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পিং নকল আওয়ামী লীগের ভিড়ে হারিয়ে যাচ্ছে আসল আওয়ামীলী লীগ’ বসুরহাট পৌরসভার জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ আবদুল কাদের মির্জা ‘তুরস্কের আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে’ যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার থানায় জিডি ভাস্কর্য বিরোধীতার আগে শিশু বলাৎকার বন্ধ করুন: ডা. জাফরুল্লাহ কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন কোম্পানীগঞ্জে ঋণের দায়ে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা! ডুবাইয়ে ইস্কান্দার মির্জা শামীমকে সম্মাননা প্রদান বিকাশ প্রতারকের সঙ্গে প্রেম করে টাকা উদ্ধার করলেন কলেজছাত্রী

সোশ্যাল মিডিয়াতে বিজ্ঞাপন দাতাদের উপর কর আরোপ করবে সরকার

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯

সার্চ ইঞ্জিন গুগল, আমাজান, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক ও ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট ইউটিউবের বিজ্ঞাপন থেকে ১৫ শতাংশ হারে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) বিজ্ঞাপন দাতাদের কাছ থেকে নেবে সরকার। অর্থাৎ ফেসবুক-ইউটিউবের মতো ভার্চ্যুয়াল জগতে বাংলাদেশ থেকে যেসব বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়, অর্থাৎ বিজ্ঞাপন দাতাদের  কাছ থেকে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট নেবে সরকার।

বাংলাদেশ সরকার টিভি, ও প্রিন্ট মিডিয়ার বিজ্ঞাপন থেকে কর পেলেও এত দিন বাংলাদেশের ভৌগোলিক সীমারেখার বাইরে এ ধরনের সেবায় বিজ্ঞাপন থেকে এত দিন ধরে সরকার কোনো শুল্ক আদায় করত না। তাই বিজ্ঞাপন দাতাদের কাছ থেকেই এই কর আদায়ে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

জানা যায়, গত এক বছরে মোবাইল নেটওয়ার্ক কোম্পানি গ্রামীণ ফোন গুগল, ফেসবুক, ইউটিউবে বিজ্ঞাপন দেয় ১২শত কোটি টাকার। যার সম্পূর্ণ অংশ পায় গুগল, ফেসবুক, ইউটিউব। বাংলাদেশ সরকার এই কর থেকে বঞ্চিত থাকে। এমন শত শত কোটি টাকার বিজ্ঞাপন গেলে সরকার কোন রাজস্ব পায় না, লাভবান হয় বিদেশী কম্পানি গুলো। এর ফলশ্রুতিতে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানা যায়।

গত বছরের এপ্রিলে গুগল, ফেসবুক, ইউটিউবের মতো ওয়েবসাইটে বাংলাদেশ থেকে দেওয়া বিজ্ঞাপনের লেনদেন থেকে সব ধরনের রাজস্ব আদায়ের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এর পরিপ্রেক্ষিতে এই ভ্যাট আদায়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে গত ২২ জানুয়ারি বাংলাদেশ ব্যাংককে একটি চিঠি দিয়েছিল এনবিআর। পরে গতকাল সোমবার এনবিআরের নির্দেশ যথাযথভাবে অনুসরণ করতে সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের নির্দেশ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের ভৌগোলিক সীমার বাইরে থেকে সেবা সরবরাহের ক্ষেত্রে সেবাগ্রহণকারীর কাছ থেকে মূসক (ভ্যাট) আদায় নিশ্চিত করতে হবে। ‘মূল্য সংযোগ কর আইন-১৯৯১’-এর ধারা ৩-এর উপধারা (৩)-এর দফা (ঘ) অনুযায়ী, বাংলাদেশের ভৌগোলিক সীমার বাইরে থেকে সেবা (যেমন: রয়্যালটি, বিভিন্ন ইন্টারনেট সার্ভিস, ফেসবুক, ইউটিউবসহ সব মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার ইত্যাদি) সরবরাহের ক্ষেত্রে সেবাগ্রহণকারীর কাছ থেকে ১৫ শতাংশ হারে মূসক আদায়যোগ্য।

নির্দেশনায় বলা হয়, ‘এসব সেবার বিপরীতে পণ্যমূল্য বাংলাদেশ ব্যাংক ও অন্যান্য ব্যাংকের মাধ্যমে বিদেশে পাঠানো হয়। কিন্তু কোনো কোনো ব্যাংক এ খাত থেকে মূসক আদায় করছে না বলে এনবিআরকে অবহিত করা হয়েছে। এ অবস্থায় মাস্টার কার্ড, ভিসা কার্ড বা টিটি ব্যবহৃত হলেও অথবা যেকোনো মাধ্যমে পেমেন্ট হোক না কেন, ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট কর্তনপূর্বক সরাসরি ট্রেজারিতে জমা করা অতীব জরুরি। তাই সকল ব্যাংককে এ খাত হতে যথাযথ রাজস্ব আদায় নিশ্চিত করার প্রয়োজনীয় অনুশাসন প্রদানের জন্য নির্দেশিত হয়ে অনুরোধ করা হলো।’

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/