• মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:০৪ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
কোম্পানীগঞ্জে অটোরিকশা চাপায় স্কুল ছাত্র নিহত! চিফ হুইপের নামে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে প্রতারণা, গ্রেফতারকৃত জাহিদ ৩ দিনের রিমান্ডে মামুনুল ও ফয়জুলের গ্রেপ্তারের দাবিতে শাহবাগ অবরোধ রামগঞ্জে পৌর সোনাপুর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী ফয়সাল মালের নির্বাচনি মোটরবাইক শোডাউন জোনাকি পোকা হিংসে হয় দিবালোকের প্রতি!! রামগঞ্জে পৌর নির্বাচনে সোনাপুর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাজুকে পুনরায় নির্বাচিত করার লক্ষে আলোচনা সভা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে ধৃষ্টতা দেখালে জবাব দেবে ছাত্রলীগ নড়াইলের চৈতী রানী বিশ্বাস কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য নোয়াখালীতে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা জুয়েল সংবর্ধিত! রামগঞ্জে ভাটরা ইউনিয়ন শ্রমিকলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের কমিটি অনুমোদন

খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবির কথা কি ভুলে গেলেন ড. কামাল

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৮

গণফোরাম সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান নেতাদের মধ্যে একজন কামাল হোসেন বলেন, আমরা ৭টি দফা কর্মসূচি দিয়েছি। সিলেটের সমাবেশ থেকে জাতীয়  ঐক্যফ্রন্টের সামনে থেকে একটি নতুন বার্তা এসেছে; এটি গত কয়েক দিনের একটি আভাস ছিল। অবশেষে, জাতীয় ঐক্যবদ্ধ ফ্রন্টের প্রথম সমাবেশ কোন নির্দিষ্ট ঘোষণার ছাড়াই শেষ হয়ে গেল।

সমাবেশে যে ৭ টি দফা নিয়ে  এত আলোচনা -সমালোচনা, গণফরম সভাপতি ও ঐক্যফ্রন্টের নেতা ড. কামাল হোসেন  প্রথম দফাটাই ভুলে গেছেন। কামাল হোসেন মো। অবশেষে, মঞ্চ থেকে আরেকজন নেতা প্রথম দফা মনে করিয়ে দেয়ার পর তিনি এই দাবিটি  উত্থাপিত করেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড: কামাল হোসেন বিভিন্ন  বিষয়ে  একে একে বক্তব্য   দিচ্ছিলেন। এদিকে, যখন তিনি ঐক্য জয় হোক বলে কথা বলে শেষ করতে যাচ্ছিলেন তার মাত্র কয়েক সেকেন্ড পর মঞ্চে বসা,গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক সুব্রত চৌধুরী কিছু একটা বললেন। সেই কথা শুনে কয়েক সেকেন্ড নীরব থেকে  কামাল হোসেন ৭ দফার প্রথম দাবি টি তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, “খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিটি আমাদের প্রথম দফা  তাই আমি তার মুক্তির দাবি জানাই।”

এর আগে প্রধান অতিথির ভাষণে কামাল বলেন, আজকের ঐক্যফ্রন্টে কাতরে  জনগণ আজ ঐক্যবদ্ধ। তিনি বলেন,ঐক্যফ্রন্ট একসাথে থাকলে আমাদের বিজয় অনিবার্য।

সভায় সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন এবং যৌথ সাধারণ সম্পাদক আলী ও মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আজমল বকাত সাদেক যৌথভাবে সমাবেশে সংগঠিত হন।

কামাল হোসেন বলেন, সরকার সর্বদাই উন্নয়নে কথা বলছে। কিন্তু উন্নয়ন কই? এইটা কিছু মানুষের উন্নয়ন। যারা বিদেশে অর্থ হস্তান্তরিত করছে, জনগণের ভোটাধিকারের সুবিধা দিচ্ছে না,  এটা  শুধু তাদের পকেটের উন্নয়ন।

এই ৭ দফার বিষয়ে তিনি বলেন, আপনারা আমাদের ৭ দফা পড়ুন। গ্রামের গ্রামে যান, উপজেলায় যান, জেলা যান, জনগণকে এই দাবীতে জড়িত  করুন।

তিনি বলেন, সংবিধানে আছে  দেশের মানুষ এই দেশের মালিক, কিন্তু এই সরকার জনগণকে তাদের মালিকানা থেকে বঞ্চিত করেছে। ৩০ লক্ষ  মানুষ দেশের জন্য জীবন দিয়েছেন। কিন্তু দেশের মানুষ দেশের মালিক না হলে আমরা সত্যিই মুক্ত হতে পারব না। তাই একটি শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণের মালিকানা পুনরুদ্ধার করা হবে।

এ সময় কামাল হোসের বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলার কথা টানলেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল জনগণের ক্ষমতা। আমাদের ক্ষমতা মালিক হতে দিন।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির সভাপতি এএসএম আবদুর রাব, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড। খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, বাবু গেশেশ্বর চন্দ্র রায়, আবদুল মঈন খান, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সুলতান মনসুর, গণফোরামের নির্বাহী ভাইস প্রেসিডেন্ট সুব্রত চৌধুরী, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, এনামুল হক, খন্দকার আবদুল মুক্তাদির, শামীমুর রহমান, বিএনপির চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিবস, সাওরুল কবির খান।-সমাবেশে বক্তব্য রাখেন

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/