• মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১০:২১ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
নগদ অর্থ ও ঈদ উপহার সামগ্রী নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে ‘ছাত্রলীগ নেতা ও তার পরিবার’ নগদ অর্থ ও ঈদ উপহার সামগ্রী নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে ‘ছাত্রলীগ নেতা ও তার পরিবার’ করোনা দুর্যোগে বিপন্ন মানুষের জন্য কাজ করছে। ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগ নেতা এয়াকুব সায়িম ইমন। ঈদের পরের দিন বাজারে আসছে এ এইচ তুর্যের “জ্বলে পুঁড়ে অঙ্গার হইলাম” দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানালেন ওবায়দুল কাদের কেন্দ্রীয় যুবলীগের পক্ষে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী বিতরন! ৫’শত শাড়ী উপহার দিল শ্রী শ্রী রমনা কালী মন্দির ও শ্রীমা আনন্দময়ী আশ্রম পরিচালনা পরিষদ! রাতের আঁধারে “ঈদ উপহার” নিয়ে অসহায় মানুষরে ধারে ধারে ছাত্রলীগ নেতা আশরাফুল ইসলাম লিমন! কেন্দ্রীয় আওয়ামী নেতা নাদেলের সুস্থতা কামনায় শাবি’র ফিরোজের উদ্যোগে দোয়ার আয়োজন। দুস্থদের মুখে ঈদের হাসি ফোটালেন সাব্বির হোসেন

কোচিং ছাড়াই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সুযোগ পেল ভাই-বোন

  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৯

কোচিংয়ের যুগে কোচিং ছাড়াই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পেয়ে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে রুবাইয়া খাতুন । তার মেধা স্কোর-২৪৪ ‘খ’ ইউনিট। শুধু রুবাইয়া নয় বিনা কোচিং এ গতবছর একই বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পেয়েছে তারই ভাই রুহান উল করিম। 

‘ঘ’ ইউনিটে তার স্কোর ছিল ১০৪৮। রুহান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইস’লামিক স্টাডিজ এ পড়ছে। অথচ কোচিং সেন্টার দাপিয়ে বেড়ানো রুহান ও রুবাইয়ার অধিকাংশ সহপাঠীরই ঠাঁই মেলেনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে।

রুবাইয়া ঝিনাইদহ কালীগঞ্জের হরিগোবিন্দপুর গ্রামের ফজলুল করিম ও নার্গিস বেগম দম্পতির সন্তান। ফজলুল করিম পেশায় মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী গ্রন্থাগরিক ও মা নার্গিস বেগম, গৃহিণী। রুবাইয়া উপজে’লার মস্তবাপুর সম্মিলিত মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগে জিপিএ ৫ এবং শহীদ নূর আলী ডিগ্রী কলেজ থেকে এইচএসসিতে মানবিক বিভাগে জিপিএ ৫ পেয়েছিল। ভাই রুহান উল করিম একই বিদ্যালয় থেকে এসএসসিতে বিজ্ঞান বিভাগে জিপিএ ৫ এবং একই কলেজ থেকে জিপিএ ৪.৪২ পেয়েছিল।

রুবাইয়ার বাবা ফজলুল করিম জানান, আর্থিক যোগান দিতে না পারায় দুই ছেলে মেয়ের একজনকেও কোচিং করানো সম্ভব হয় নি। অথচ দুই জনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পেয়েছে। তিনি জানান, রুবাইয়াকে কোচিং করতে না দেওয়ায় অনেকে অনেক কথা বলেছে। তারপরও ভরসার স্থল ছিল গত বছর বিনা কোচিং এ ছেলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া। 

ছেলের পরাম’র্শ এবং নিজের অ’ভিজ্ঞতায় রুবাইয়াকে পড়াশুনার ব্যাপারে সঠিক গাইড লাইন দিতে পেরেছি। ফলশ্রুতিতে সে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পেয়েছে। উল্লেখ্য, এই দম্পতির বড় ছেলে রিফাত উদ্দিন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে সরকারী এম এম কলেজে পদার্থবিজ্ঞান বি’ষয়ে ৩য় বর্ষে পড়াশুনা করছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/