• সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:৪৮ অপরাহ্ন

যাকে খুন করতে চেয়েছে তাকেই নির্যাতনকারী বানিয়ে প্রচারণায় শিবির

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৯

বুয়েটের যে ছাত্র নেতাকে খুন করতে বারবার চেষ্টা করেছে শিবির তাকেই নির্যাতনকারী বানিয়ে প্রচার চালাচ্ছে এখন শিবির।

কিছুদিন আগে বুয়েটে শিবির-জঙ্গী সম্পৃক্ততার অভিযোগে খুন হয় আবরার নামের একজন শিক্ষার্থী। আবরার খুন হওয়ার পরেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় ইতিমধ্যেই অভিযুক্ত ১৭জন এবং পুলিশের সন্দেহভাজন ৩জন সহ মোট ২০ জন গ্রেফতার হয়েছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে দলমতের উর্ধে সকল অপরাধীদের সাজা নিশ্চিত করার কঠোর মনোভাব প্রকাশ করেন। ঘটনার ভয়াবহতা থেকে বুয়েট প্রশাসন ক্যাম্পাসে সাংগঠনিক ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করে।

আবরার হত্যার বিচারে আন্দোলরত শিক্ষার্থীদের সব দাবি বুয়েট ভইসই মেনে নেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পর নোটিশ জারি করেছে বুয়েট প্রশাসন।

তবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং বুয়েট প্রশাসনের কঠোর অবস্থানের পরেও আবরার হত্যাকে কেন্দ্র করে রাজনীতির মাঠে সুবিধা করে নিতে তৎপর শিবির ও জঙ্গি গোষ্ঠী।

জঙ্গি সম্পৃক্তটার কারনে নানা সময়ে বুয়েট থেকে বিতাড়িতরাও এখন সক্রিয়। তাদেরকে বের করে দেওয়ার ঘটনাকে “নির্যাতন” বলে সোশ্যাল মিডিয়া ও রাস্তাঘাটে পোষ্টারিং করে প্রচার করে যাচ্ছে। জঙ্গি সম্পৃক্ততার কারনে নানা সময়ে বুয়েট থেকে বিতাড়িতরাও এখন সক্রিয়।

আবরারের প্রতি মানুষের সহানুভূতি কাজে লাগিয়ে জঙ্গি সংগঠনগুলো মানুষকে বোকা বানানোর এই কাজটি করে যাচ্ছে।

আবরার হত্যার পরই বুয়েটের সাবেক শীর্ষ শিবির নেতা আনামুল হক তার পিঠের ছবি শেয়ার দেয়। সেখানে দেখা যায় তার পিঠে ছোপ কালো আঘাতের দাগ। সাধারণ শিক্ষার্থীরা এই আনামুলকে নিজামি-মুজাহিদের লেখা বইসহ ধরে গণধোলাই দিয়েছিলো। মুল ঘটনা আড়াল করে আনামুলের লেখা পোষ্টটি অনেক মানুষ শেয়ার করে।

সেখানে নির্যাতনকারী হিসেবে সাবেক বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক তন্ময় আহমেদ, সাবেক বুয়েট ছাত্রলীগের আহবায়ক শুভ্র জ্যোতি টিকাদার ও ছাত্রলীগ নেতা কাজলসহ কিছু নাম সে উল্লেখ করে।

আগে একবার এমন অপপ্রচারের পরেই এই শিবির-জঙ্গিরা তন্ময় আহমদকে খুন করার জন্য তার এলাকায় গিয়ে তার উপর হামলা করে।

ইদের ছুটিতে বাড়ি যাওয়া তন্ময় আহমেদ সন্ধায় বন্ধুদের সাথে ঘুরতে বের হলে হামলা চালানো হয় তার উপর। তার ঘাড়, মাথা, হাতে পুরা শরীরে কোপাইয়া একদম নিস্তেজ করে মৃত্যু নিশ্চিত ভেবে রাইখা গেছিলো। ভাগ্যক্রমে সেদিন তন্ময় বেঁচে যায়। সেই তন্ময়কে এখন নির্যাতন কারি আখ্যা দিয়ে ফেসবুকে প্রচার করছে শিবির।

আজ আবার বুয়েটিয়ান নামের একটি ফেসবুক পেজ “নির্যাতনকারী” আখ্যা দিয়ে আরও কয়েকজনের ছবি প্রকাশ করে।

তৎকালীন বুয়েট শিবিরের তালিকা

বুয়েটের আন্দোলনকারীরা ইতিমধ্যে বলেছেন এই পেজের সাথে তাদের সম্পৃক্ততা নাই।

এদিকে ফেসবুকে নিজের আইডিতে পোষ্ট দিয়ে তন্ময় আহমেদ আবরার হত্যার সুষ্ঠু বিচার দাবি করে পাশাপাশি এসব অপপ্রচারের জবাবও দিয়েছেন। সেখানে তিনি লিখেন 
“আমার উপর হামলার (১০ আগস্ট ২০১৩) আগে ঠিক একইভাবে শিবির প্রচার চালিয়েছিল নানা রকম গল্প তৈরি করে। এরপর হামলা আর ১৩২ টা সেলাই নিয়ে এখনও আপনাদের ভালবাসায় বেচে আছি।”

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/