• বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:৪৩ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
সালাউদ্দিন কে সরাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়! জনতার রাজনীতির এক যোদ্ধার নাম সম্রাট সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা জুয়েলকে যুক্তরাষ্ট্রস্থ কোম্পানীগঞ্জবাসীর সংবর্ধনা! ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ড একটি জাতিগোষ্ঠী ও জাতিসত্তাকে গণহত্যার সামিল রামগঞ্জে ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত মুজিববর্ষ উপলক্ষে নোয়াখালীতে ছাত্রলীগের উদ্যোগ বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি ২১ শে আগস্ট ও বিএনপির ঐতিহাসিক বিচারহীনতার চরিত্র কোম্পানীগঞ্জসহ আরও ১০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলের স্থান চূড়ান্ত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা: কী ঘটেছিল সেই দিন বঙ্গবন্ধু বিশ্বের মুক্তিকামী সকল মানুষের রাজনৈতিক আদর্শ

আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে ফাইনালে ব্রাজিল!

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৩ জুলাই, ২০১৯

কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল ল্যাতিন আমেরিকার দুই সেরা দল ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী এই দুটি দলের লড়াইয়ে আর্জেন্টিনাকে ২-০ গোলে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ব্রাজিল। ম্যাচে ব্রাজিলের হয়ে গোল দুটি করেন জেসুস ও ফিরমিনো।

ম্যাচের মাত্র দ্বিতীয় মিনিটেই গোলের সুযোগ পায় ব্রাজিল। তবে গ্যাব্রিয়েল জেসুসের দুর্দান্ত শট অসাধারণ দক্ষতায় আটকে দেন আর্জেন্টিনা গোলকিপার আরমানি।

ব্রাজিলের আক্রমন সামনে ম্যাচের ১২ মিনিটের সময় প্রায় গোল পেয়েই গিয়েছিল আর্জেন্টিনা। কি্তু দূর্ভাগ্য আর্জেন্টিনার। লিওনার্দো পারেদেসের ডান পায়ের দুরপাল্লার শট বারপোস্ট ঘেষে বেড়িয়ে যায়।

ম্যাচের ১৭ মিনিটে অবিশ্বাস্য এক মিস করেন ব্রাজিলিয়ান তারকা জেসুস। গোলকিপারকে একা পেয়েও গোল করতে পারেনি সে।

কিন্তু এই হতাশা বেশিক্ষন থাকেনি। ২ মিনিট পরই দারুণ এক গোল করে ব্রাজিলকে এগিয়ে দেন ম্যানসিটি ফরোয়ার্ড। রবার্তো ফিরমিনোর পাস থেকে গোলটি করেন তিনি। এই গোলের সঙ্গে সঙ্গে প্রতিযোগিতাপূর্ন ম্যাচে দীর্ঘদিনের গোলক্ষরা কাটালেন এই ব্রাজিল ফরোয়ার্ড।

ম্যাচের ৩০ মিনিটে অবিশ্বাস্য এক গোল মিস হয় আর্জেন্টিনার। ফ্রিকিক পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। সেখান থেকে মেসির নেয়া ফ্রিকিকে দুর্দান্ত এক হেড করেন সার্জিও অ্যাগুয়েরু। বল লাফিয়ে উঠেও ধরতে পারেনি অ্যালিসন। কিন্তু বল অ্যালিসনকে পরাস্ত করলেও বারপোস্টে লেগে ফিরে আসে। সেই বল হেড করে ক্লিয়ার করেন থিয়াগো সিলভা।

এরপর ম্যাচে প্রথমার্ধের বাকিটা সময় আধিপত্য বিস্তার করে আর্জেন্টিনা। বেশ কিছু আক্রমনও করে তারা। কিন্তু কোনটাই পূর্নতা পায়নি। ফলে প্রথমার্ধ শেষে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় ব্রাজিল।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই অ্যালিসনের পরীক্ষা নেয় আর্জেন্টিনা। লাউটারো মার্তিনেজের বাম পায়ের শট ঝাঁপিয়ে পড়ে আটকে দেন অ্যালিসন। সেই সাথে রক্ষা করেন ব্রাজিলের গোলপোষ্ট। মিইনট খানেক পরই ডি পলের বুলেট গতির শট বারের উপর দিয়ে গেলে ফের হতাশ হতে হয় দলটিকে।

ম্যাচের ৫৬ মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ এসেছিল ব্রাজিলের সামনে। তবে কৌতিনহো এই যাত্রায় দারুণ সুযোগ মিস করলে ব্যবধান বাড়ানো হয়নি তাদের।

পাল্টা আক্রমনে ব্রাজিলের উপর দিয়ে ঘূর্ণিঝড় বয়ে যায়। প্রথমে মেসির দুর্দান্ত শট বারপোস্টে লেগে ফিরে আসে। এরপর ফিরে আসা বল হেড করে ক্লিয়ার করার চেষ্টা করেন সিলভা। তবে সেটা গিয়ে পড়ে ফের মেসির কাছেই। তার মাটি কামড়িয়ে বাড়ানো পাস সবাইকে ফাঁকি দিয়ে বারপোস্টের সামনে দিয়ে অপর পাস দিয়ে বেড়িয়ে গেলে গোল পাওয়া হয়নি আর্জেন্টিনার।

এখানেই শেষ নয়, এরপর যেন ব্রাজিলের উপর চেপে বসে আর্জেন্টিনা। একের পর এক আক্রমন করতে থাকে মেসি-অ্যাগুয়েরুরা। কিন্তু ব্রাজিলের ডিফেন্সে গিয়ে সব এলোমেলো হয়ে যাচ্ছিল। যদিও বা ডিফেন্স বেদ করতে পরছিল, তারপর দাড়িয়ে যাচ্ছিল অ্যালিসন।

ম্যাচের ৬৬ মিনিটে এমনই একটি আক্রমন থেকে ব্রাজিলের ডিবক্সের খুব কাছে ফ্রিকিক পায় আর্জেন্টিনা। মেসির নেয়া সেই ফ্রিকিক দারুণ দক্ষতায় নিজের আয়ত্বে নিয়ে নেন অ্যালিসন।

আর্জেন্টিনা পুরো সময় জুড়ে আক্রমন করলেও ম্যাচের ৭১ মিনিটের সময এক জেসুসের কাছেই হেরে যায় আর্জেন্টিনা। আর্জেন্টিনার আক্রমন সামলে দারুণ এক কাউন্টার অ্যাটাকে পাল্টা আক্রমনে উঠে ব্রাজিল। আরও ভালো করে বললে কেবল দুজন তারকা গ্যাব্রিয়েল ও জেসুস।

দারুণ নৈপুন্য দেখিয়ে নিজেদের অর্ধে পাওয়া বল নিয়ে জেসুস পরাস্ত করেন সামনে থাকা তিন আর্জেন্টিনার তারকাকে। দৌড়ে চলে যান আর্জেন্টিনার ডিবক্সের কাছে। সেখানে গিয়ে ডান প্রান্ত দিয়ে দৌড়ে আসা ফিরমিনোকে বল পাস দেন। আর ফিরমিনো ফাকা পোস্টে বল পাঠাতে কোন ভুল করেন নি।

শেষ পর্যন্ত ম্যাচে আর কোন গোল না হলে ব্রাজিল ২-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে। একই সাথে নিশ্চিত করে কোপার ফাইনাল।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/