• শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :

‘দেশভাগের পর এই প্রথম ভারতের সমর্থন করেছে পাকিস্তান’

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১ জুলাই, ২০১৯

শোয়েব আখতার (বামে), দেশভাগের পর এই প্রথম ভারতের সমর্থন করেছে পাকিস্তান-

ইংলিশদের বিপক্ষে ম্যাচে ভারতের সমর্থন করতে দেখা যাবে। কিন্তু ম্যাচটা হেরে গেছে ভারত। ম্যাচ শেষে তাই আক্ষেপ প্রকাশ করে সাবেক পাকিস্তানি ফাস্ট বোলার শোয়েব আখতার বললেন, ১৯৪৭ সালে দেশভাগের পর এই প্রথম ভারতের সমর্থন করেছে পাকিস্তান।

ভারত-ইংল্যান্ড লড়াই শুধু এই দুই দলের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল না। এই ম্যাচের ফলাফল অন্য তিনটি দলের বিশ্বকাপ ভাগ্যে পরিবর্তন আনার উপলক্ষও ছিল। ইংল্যান্ডের কাছে ভারত হেরে যাওয়ায় বাকি দুই দলের (বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা) যেমন ক্ষতি হয়েছে, পাকিস্তানও শীর্ষ চারের বাইরে চলে গেছে।

এই ইউটিউব ভিডিওতে শোয়েব আখতার বলেন, ‘ভারতের হাতে ৫ উইকেট ছিল। আমি ভেবেছিলাম তারা সুযোগ গ্রহণ করবে, কিন্তু আমি মনে করি ভারত ওই সময় খুব ধীরে খেলেছে। যাই হোক, এটা পাকিস্তানের কামনা ছিল এবং দেশভাগের পর এই প্রথম আমরা ভারতকে সমর্থন করেছিলাম। কিন্তু ভারত জিততে ব্যর্থ হয়েছে এবং ভারতের পক্ষে যে ভালো পারফর্ম করতেন, তিনি আমাদের কাছেও নায়ক হতেন।’

শুরুতে ব্যাট করতে নেমে স্কোর বোর্ডে ৩৩৭ রান তুলেছিল ইংল্যান্ড। জবাব দিতে নেমে ৩১ রানে হেরে যায় ভারত। রোহিত শর্মা চলতি বিশ্বকাপে নিজের তৃতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন। কিন্তু রোহিতের ১০২ ও বিরাট কোহলির ৬৬ রানের ইনিংস ভারতের জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। 

স্বাগতিকদের কাছে হেরে যাওয়ার পর ভারতের মিডল অর্ডার নিয়ে সমালোচনার ঝড় বয়ে গেছে। ৩১ বলে ৪২ রান করেও ধীরে ব্যাটিংয়ের দায়ে বেশি সমালোচিত হয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। যদিও তার স্ট্রাইক রেট বেশ ভালো ছিল, কিন্তু ইংলিশদের বিশাল সংগ্রহ তাড়া করার জন্য তা মোটেই কার্যকর ছিল না। 

এদিকে ভারতের নেতিবাচক খেলায় ক্ষোভে ফুঁসছে ক্রিকেটবিশ্ব। লম্বা ব্যাটিং লাইনআপ সমৃদ্ধ দলটি যেভাবে খেলেছে, তাতে অবাক ক্রিকেটভক্তরা। তাদের দাবি, ব্যাটিংয়ের শুরু থেকেই মনে হয়েছে, ভারত জয়ের জন্য খেলছে না। সমালোচকদের কয়েকজন তো তিনিসহ গোটা টিম ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধেই ম্যাচ পাতানোর অভিযোগ তুলেছেন। এছাড়া ধোনিদের খেলার সমালোচনা করেছেন সৌরভ গাঙ্গুলী, সঞ্জয় মাঞ্জেরেকার, হর্ষ ভোগলের মতো ক্রিকেট বিশ্লেষকেরাও।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/