• শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৩৬ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
সালাউদ্দিন কে সরাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়! জনতার রাজনীতির এক যোদ্ধার নাম সম্রাট সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা জুয়েলকে যুক্তরাষ্ট্রস্থ কোম্পানীগঞ্জবাসীর সংবর্ধনা! ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ড একটি জাতিগোষ্ঠী ও জাতিসত্তাকে গণহত্যার সামিল রামগঞ্জে ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত মুজিববর্ষ উপলক্ষে নোয়াখালীতে ছাত্রলীগের উদ্যোগ বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি ২১ শে আগস্ট ও বিএনপির ঐতিহাসিক বিচারহীনতার চরিত্র কোম্পানীগঞ্জসহ আরও ১০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলের স্থান চূড়ান্ত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা: কী ঘটেছিল সেই দিন বঙ্গবন্ধু বিশ্বের মুক্তিকামী সকল মানুষের রাজনৈতিক আদর্শ

শ্বাষরুদ্ধকর ম্যাচে প্যারাগুয়েকে হারিয়ে সেমিফাইনালে ব্রাজিল

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ২৮ জুন, ২০১৯

কোপা আমেরিকার প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে আজ মুখোমুখি হয়েছিল ব্রাজিল ও প্যারাগুয়ে। গত দুই আসরে প্যারাগুয়ের কাছে টাইব্রেকারে বিদায় নেয়া ব্রাজিল এবারও সেই ট্রাইব্রেকারেই গিয়ে ম্যাচের শেষ করে। তবে এবার ফলাফল ছিল ব্রাজিলের পক্ষে। গোল শূন্য ম্যাচের পর টাইব্রেকারে ব্রাজিল ৪-৩ গোলে জয় লাভ করে।

ম্যাচের শুরু থেকেই দারুণ খেলতে থাকে ব্রাজিল। কিন্তু ম্যাচে সুযোগ তৈরি করতে ব্রাজিলকে বেশ বেগ পেতে হয়। কেননা ৫জন ডিফেন্ডার ও ৪জন মিডফিল্ডার নিয়ে বেশ ডিফেন্সিভ দল সাজায় প্যারাগুয়ে।

এরমধ্যে ম্যাচের ২১ মিনিটে দারুণ এক সুযোগ আসে ব্রাজিলের সামনে। ডিবক্সের ভেতরে ফাকায় বল পেয়ে যায় কৌতিনহো। কিন্তু প্রথম টাচে বল নিয়ন্ত্রনে নিতে পারলেও প্যারাগুয়ের অধিনায়কের দারুণ ডিফেন্ডিংয়ের কারণে কোন বিপদ ঘটাতে পারেনি ব্রাজিলিয়ান তারকা।

ম্যাচের ২৮ মিনিটের সময় ভুল করে বসেছিলেন মার্কুইনহোস। নিজেদের অর্ধে তিনি বল পাস করেন অ্যালিসনের কাছে। অ্যালিসন ফিরতি বল পাঠায় তার কাছে। তখন প্যারাগুয়ের দুই তারকা তার দিকে আসছে। ফলে তিনি বল মারেন উপরের দিকে। কিন্তু সেই বল আবার চলে যায় প্যারাগুয়ের খেলোয়াড়ের কাছে। কিন্তু আর্থারের কল্যানে কর্নারের বিনিময়ে বেঁচে যায় তারা।

সেই কর্ণার থেকেই দারুণ এক আক্রমন করেছিল প্যারাগুয়ে। এ যাত্রায় অ্যালিসনে আটকে যায় প্যারাগুয়ের আক্রমন।

প্যারাগুয়ের বিপক্ষে প্রথমার্ধে সুযোগ তৈরি করতেই কষ্ট করা ব্রাজিল আরেকটি সুযোগ পায় ম্যাচের ৪০ মিনিটের সময়। তবে কৌতিনহোর শট এ যাত্রায় চলে যায় সরাসরি প্যারাগুয়ের গোলকিপারের বরাবর।

গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধের ৫৫ মিনিটে পেনাল্টি পায় ব্রাজিল। তবে ভিএআরের সহায়তায় রিপ্লে দেখার পর পেনাল্টির সিদ্ধান্ত বাতিল হয়ে যায়। কিন্তু লাল কার্ড দেখেন পেরুর ফ্যাবিয়ান।

সেখান থেকে পেনাল্টির পরিবর্তে ফ্রিকিক পায় ব্রাজিল। দানি আলভেসের নেয়া ফ্রিকিক দারুণ দক্ষতায় কর্নারের বিনিময়ে প্রতিহত করেন প্যারাগুয়ের গোলকিপার।

এরপরও ব্রাজিল একের পর এক আক্রমন করতে থাকে। কিন্তু সব আক্রমন ওই প্যারাগুয়ের ডিবক্সের কাছে গিয়ে মুখ থুবরে পড়ে যায়। এমনকি প্যারাগুয়ের জমাট ডিফেন্স ভেঙে প্রতিপক্ষের গোলপোস্টে শটই দিতে পারছিল না ব্রাজিলিয়ান তারকারা।

ম্যাচের ৭৪ মিনিটে অবিশ্বাস্য এক মিস করেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। ডিবক্সের ভেতরে গোলপোস্টের খুব কাছে থেকেও অবিশ্বাস্য ভাবে পোস্টের বাইরে বল মারেন জেসুস।

ম্যাচের তখন ৮৮ মিনিট। ব্রাজিল ভক্তদের তখন তাড়া করতে শুরু করে ২০১১ ও ২০১৫ সালের স্মৃতি যা তাদের বিদায় করে দিয়েছিল কোপা আমেরিকা থেকে। এই প্যারাগুয়ের বিপক্ষেই সেই দুই আসরেই ব্রাজিল বাদ পড়ে টাইব্রেকারে হেরে।

কিন্তু সেই মুহূর্তেই দারুণ এক সুযোগ পেল ব্রাজিল। কিন্তু এবারও ব্রাজিলের বাধা হয়ে দাড়ায় প্যারাগুয়ের গোলকিপার। আটকে রাখে ব্রাজিলকে।

কিন্তু ৯১ মিনিটে ব্রাজিলকে আটকাতে পারেনি প্যারাগুয়ের গোলকিপার। অ্যালানের পরিবর্তে মাঠে নামা উইলিয়ানের দারুণ শট গোলকিপারকে পরাস্ত করে। কিন্তু না, গোল হয়নি। বল প্রতিহত হয় বারপোষ্টে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/