• বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৫১ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
সালাউদ্দিন কে সরাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়! জনতার রাজনীতির এক যোদ্ধার নাম সম্রাট সাবেক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা জুয়েলকে যুক্তরাষ্ট্রস্থ কোম্পানীগঞ্জবাসীর সংবর্ধনা! ১৫ আগস্ট হত্যাকাণ্ড একটি জাতিগোষ্ঠী ও জাতিসত্তাকে গণহত্যার সামিল রামগঞ্জে ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত মুজিববর্ষ উপলক্ষে নোয়াখালীতে ছাত্রলীগের উদ্যোগ বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি ২১ শে আগস্ট ও বিএনপির ঐতিহাসিক বিচারহীনতার চরিত্র কোম্পানীগঞ্জসহ আরও ১০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলের স্থান চূড়ান্ত ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা: কী ঘটেছিল সেই দিন বঙ্গবন্ধু বিশ্বের মুক্তিকামী সকল মানুষের রাজনৈতিক আদর্শ

নতুন মুসলিম দেশ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করছে বাংসামরো

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৮

বিশ্ব মানচিত্রে যোগ হতে চলেছে পূর্ব এশিয়ার ফিলিস্তিন নামে পরিচিত বাংসামরো আলাদা মুসলিম রাষ্ট্র। আগে এটি ছিলো মিন্দানাও অঞ্চলের অন্তর্ভুক্ত একটি অঞ্চল।

আগামী বছর জানুয়ারি মাসেই বিশ্ব মানচিত্রে স্বায়ত্বশাসিত মুসলিম রাষ্ট্র হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে বাংসামরো নতুন এই দেশটি। একটি অখ্যাত ও নির্যাতিত মুসলিম জনপদ ছিলো এটি।

নতুন এই বাংসামরোর জনসংখ্যা মোট ২ কোটি ৫৬ লাখ এদের মধ্যে ৯২ শতাংশই মুসলিম।

আনুমানিক শতবছর ধরে নিপীড়িত এই  অঞ্চলের রয়েছে সুদীর্ঘ সংগ্রামের ইতিহাস। বৃটিশদের ও  স্পেনিশ পর বাংসামরো মুসলিমরা প্রায় ৫০ বছর ধরে সংগ্রাম/ আন্দোলন করছে ফিলিপাইন সরকারের বিরুদ্ধে স্বাধিনতার জন্য। আর  এতে লাখো মুসলিমের প্রাণহানী ঘটেছে দীর্ঘদিন ধরে।

বাংসামরো ফিলিপাইনের একটি মুসলিম অধ্যুষিত এরিয়া,  এ কারণেই হয়তো ফিলিপাইন কর্তৃপক্ষ এর প্রতি সুনজর দেয়নি কখনো ফলে এই এলাকা এখনো অনুন্নত।

স্বাধীনতাকামী এই মুসলিম অঞ্চলে জন্য খুব কম দেশই সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে, কিন্তু এর পরও তারা নিজেদের বিশ্বাস ও চেতনার বলে স্বাধীনতার দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে।  মরোদের দীর্ঘ আন্দােলন, সংগ্রামের পর এই প্রথম ফিলিপাইন সরকারের প্রেসিডেন্ট দুতার্তে আনুষ্ঠানিকভাবে ‘বাংসামরো’ স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করবেন বলে জানিয়েছেন।

এই বাংসামরো এরিয়াটি নানা খনিজসম্পদে সমৃদ্ধ। প্রতিরক্ষার জন্য রয়েছে ঈমানদীপ্ত তরুণ দল। এই ঈমানদীপ্ত তরুণ দল নতুন রাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত। কিন্তু ফিলিপিনো সরকার এ ঈমানদীপ্ত তরুণ দল মরো ইসলামিক লিবারেশন ফ্রন্ট ভেঙে দিতে চায়।

সুত্রমতে জানা যাচ্ছে, নতুন এই দেশের প্রধান হবেন ড. মুরাদ ইবরাহিম। মরো ইসলামিক লিবারেশন ফ্রন্টের আপোসহীন সংগ্রামী ড. মুরাদ ইবরাহিম বাংসামরো জনগণের আশার আলো জ্বেলেছেন।

মুরাদ ইবরাহিমের  দৃঢ় মনোবলের ও আপোসহীনতা সুফল আজকের বাংসামরোর স্বাধীন সরকার। সেখানকার জনগণ  উচ্ছ্বসিত ও উদ্বেলিত স্বাধীনতার স্পর্শে, এবং বিশ্ব মুসলিম উম্মাহও বুকভরা আশা নিয়ে তাকিয়ে আছে মরো জনপদের প্রতি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/