• শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৫:৪৯ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
দুই শ কোটি টাকার চেক ও নগদ ১০ কোটি টাকাসহ আটক জি কে শামীম ! ছাত্রদল কাউন্সিলের ভোট গ্রহণ শেষ পর্যায়ে, ফল রাতেই তথ্য গোপনের অভিযোগে বাতিল হতে পারে ভিপি পদ! যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ গ্রেপ্তার ! ক্যাসিনোতে থেকে আটক শতাধিক কোম্পানীগঞ্জে মন্দিরে দেবীর ওপর হামলা, আটক ১ শেখ হাসিনাকে নিয়ে ‘ডিপ্লোম্যাট’র কভার স্টোরি এ পি জে আব্দুল কালাম স্মৃতি পুরস্কারে ভূষিত শেখ হাসিনা দলীয় নেতাদের প্রতি আরও কঠোর হচ্ছেন, যুবলীগ কে হুশিয়ারি: শেখ হাসিনার ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পাওয়া মুক্তিযাদ্ধা পরিবারের সন্তান জয়। মঞ্চায়িত হলো আবৃত্তি একাডেমির ৫৯তম প্রযোজনা ‘বৃশ্চিক লগ্ন’

তিন দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীকে নিয়োগপত্র দিলেন অনন্ত

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৮
তিন দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীকে চাকরি দিলেন অনন্ত
তিন দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীকে চাকরি দিলেন অনন্ত

তিনজন দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী কে চাকরি দিলেন চিত্রনায়ক ও এজেআই গ্রুপের চেয়ারম্যান অনন্ত জলিল। আজ শনিবার রাজধানীর এফডিসিতে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি আয়োজিত দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের চাকরি প্রদান অনুষ্ঠানে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রথম পর্যায়ে তিন জনের হাতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেন তিনি।

চাকরিতে পাওয়া তিনটি দৃষ্টিশক্তিহীন  সমাজবিজ্ঞান বিভাগের রিপা তাবাসম ও রাজনৈতিক বিজ্ঞানের পারভিন আক্তার এবং পারুল বেগম।

তারা ইডেন কলেজ থেকে তাদের শিক্ষা শেষ করে।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থী, , শিল্প উদ্যোক্তা সুমন ফারুক, অধ্যাপক আবু রাইস এবং অন্যান্যরা সহ বেশ কয়েকজন বিশিষ্ট অক্ষম শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। তাজুল ইসলাম চৌধুরী তুহিন ও লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব।) জুলফিকার আলী মজুমদার।

উল্লেখ্য, এই বছরে, এই বছরের এপ্রিল মাসে দৃষ্টিশক্তিহীন ব্যক্তিদের সঙ্গে ‘বিতর্কের আলো দেখছি’ শীর্ষক প্রতিযোগিতায়, অনন্ত জলিল তার প্রতিষ্ঠানের চাকরির জন্য পাঁচটি দৃষ্টিশক্তিহীন শিক্ষার্থীর কর্মসংস্থানের ঘোষণা দিয়েছেন।

আজ, ঘোষণা বাস্তবায়ন করা হয়েছে।  ভবিষ্যতে শীঘ্রই আরো কিছু করার জন্য কর্মসংস্থান ব্যবস্থা করা হবে।

তিনি অক্ষমদের জন্য কাজের জন্য মাঠ প্রস্তুত করতে সময় নেন, কারণ এই ঘোষণার বাস্তবায়ন থেকে কয়েক মাস সময় লেগেছে।

এ প্রসঙ্গে আনন্ত জলিল বলেন, “সেই সময়ে, আমি আমার প্রতিষ্ঠানের কর্মসংস্থানের পাঁচটি দৃষ্টিভঙ্গি দিতে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম। শেষ পর্যন্ত, আমি তাদের কাজের জন্য কিছু ক্ষেত্র তৈরি করেছি।

ডেমোক্র্যাটের বিতর্কের চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, সকল যোগ্যতা সত্ত্বেও অন্ধ শিক্ষার্থীদের কাজের ক্ষেত্রে তাদের বৈষম্যের শিকার হওয়া উচিত নয়। আমরা দৃষ্টিশক্তিহীনদের জন্য চাকরি তৈরির চেষ্টা করছিলাম।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..