• বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন কোম্পানীগঞ্জে ঋণের দায়ে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা! ডুবাইয়ে ইস্কান্দার মির্জা শামীমকে সম্মাননা প্রদান বিকাশ প্রতারকের সঙ্গে প্রেম করে টাকা উদ্ধার করলেন কলেজছাত্রী কোম্পানীগঞ্জে অটোরিকশা চাপায় স্কুল ছাত্র নিহত! চিফ হুইপের নামে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে প্রতারণা, গ্রেফতারকৃত জাহিদ ৩ দিনের রিমান্ডে মামুনুল ও ফয়জুলের গ্রেপ্তারের দাবিতে শাহবাগ অবরোধ রামগঞ্জে পৌর সোনাপুর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী ফয়সাল মালের নির্বাচনি মোটরবাইক শোডাউন জোনাকি পোকা হিংসে হয় দিবালোকের প্রতি!! রামগঞ্জে পৌর নির্বাচনে সোনাপুর ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাজুকে পুনরায় নির্বাচিত করার লক্ষে আলোচনা সভা

ঐক্যফ্রন্টে ‘ক্যু’: কামাল আউট, তারেক ইন

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৮

রাতের অন্ধকারে জাতীয় ঐক্য ফ্রন্টের নেতৃত্ব লুট করা হয়। কামাল হোসেনকে পরাজিত করে প্রধান অতিথি হিসেবে তারেক জিয়া উদ্বোধন করেন।
লন্ডন থেকে তিনি বলেন, ২0 দল এবং জাতীয় ঐক্যবদ্ধ ফ্রন্ট থেকে কে কে নির্বাচিত হবে সে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিবেন তিনিই।

দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুলকে জানান, ২0 দলীয় জোটের জন্য মনোনীত প্রার্থী এবং ঐক্যবদ্ধ ফ্রন্টের কাছে তাকে দেওয়া উচিত। তারেক জিয়া 20 টি দল এবং একক ফ্রন্টের চূড়ান্ত প্রার্থীদের তালিকা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন। তবে দুই দিন আগে সিদ্ধান্ত ভিন্ন ছিল। মতিঝিল ডা। কামাল হোসেন চেম্বারে অনুষ্ঠিত সভায় সকলেই একমত হন যে আসন বরাদ্দের জন্য ইউনাইটেড ফ্রন্ট সভায় চূড়ান্ত করা হবে।

‘ধানের শীষ’ প্রতীক ঘোষণার পরই সামঞ্জস্যপূর্ণ ফ্রন্ট পরিবর্তন হতে পারে। তরেক জিয়া স্ক্রিন লুকিয়ে বেরিয়ে এলেন। তিনি অংশীদারদের অন্তত দুই নেতা শক্তিশালী। গতকাল তারিক জিয়া কর্তৃপক্ষের প্রতিষ্ঠার পর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মনোনয়নপত্র চূড়ান্ত করার প্রস্তাব দেন। এদিকে, সম্মিলিত সামনের কোনো সহযোগী জনগণের ফোরামের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেনি। গত রাতে এটি নিশ্চিত করা হয়েছিল যে জাতীয় আগ্রাসন ফ্রন্ট অবশেষে জয়লাভ করলে তারেক তারেকের সত্যিকার নেতা হবে।

বিজয়ী নির্বাচনে জয়লাভ করলে সরকার তার প্রথম কাজ তারেককে দেশে ফেরত দেবে, তার মামলা প্রত্যাহার করবে এবং তাকে প্রধানমন্ত্রী করে দেবে। বিএনপি নেতারা অনেকেই মন্তব্য করছেন যে এই কাজটি সম্পন্ন হলে ঐক্যবদ্ধ ফ্রন্টকে ‘গলা ধাক্কা দেওয়া’ হবে। বিএনপির দায়ী সূত্র জানায়, তারিক জিয়া ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশে আসল আপত্তিজনক স্থান। ২001 থেকে ২006 সাল পর্যন্ত তারেক জিয়া এর নেতৃত্বের সামনে হারা ভান দুর্নীতির সম্মুখীন হবে।

তারেক ও তার বন্ধুরা দুষ্টতার অনুশীলন করবে। এ প্রসঙ্গে ড। কামাল হোসেনকে সামনে আনা হয়। সবাই দেখিয়েছে, তারিক ও জিয়া পরিবার বিভাগটি শেষ করেছে। কামাল হোসেনের নেতৃত্বে অধ্যাপক ড। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিএনপি বিশ্বাস করে। কিন্তু পার্টি কর্তৃপক্ষ জিয়া পরিবারের বাইরে চলে যাওয়ার আগে তারেক জিয়া নেতৃত্ব গ্রহণ করেন। এখন, তার নির্দেশনা অনুযায়ী, একক সামনে। বিএনপির অনেক নেতাকর্মী বলেন, আমরা টাকা দিয়ে অর্থ প্রদান করি। কামালকে কিনেছেন তাই তিনি তারেক জিয়া এর নির্দেশে কাজ করবেন। ‘যদিও কমল চুপ করে আছে, কিন্তু ভিতরেও সে লাজুক। কারণ, চাচাকে চাচাকে এখন কামাল বলে ডাকছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/