• বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০৫:১৬ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
গৃহহীন অসহায় মমতাজকে টিম হাসিমুখের ঘর উপহার! বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে ঢাকাসহ সারাদেশে যুবলীগের বিক্ষোভ দেশজুড়ে দৃষ্টিনন্দন ইসলামি ভাস্কর্য রামগঞ্জে দল্টা বাঙ্গালী ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পিং নকল আওয়ামী লীগের ভিড়ে হারিয়ে যাচ্ছে আসল আওয়ামীলী লীগ’ বসুরহাট পৌরসভার জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ আবদুল কাদের মির্জা ‘তুরস্কের আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে’ যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার থানায় জিডি ভাস্কর্য বিরোধীতার আগে শিশু বলাৎকার বন্ধ করুন: ডা. জাফরুল্লাহ কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন

জাবিতে এক রাতেই ছাত্রী হলের ১৭ কক্ষে চুরি!

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১৩ জুন, ২০২০

দীর্ঘদিন করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ রয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। সেই সাথে বন্ধ শিক্ষার্থীদের সবগুলো আবাসিক হল। পরিপূর্ণ আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয় হওয়ায় বর্তমানে কোনো শিক্ষার্থীই ক্যাম্পাসে অবস্থান করছেন না। আর এ সুযোগে গত বৃহস্পতিবার (১১ জুন) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়টির ছাত্রীদের আবাসিক প্রীতিলতা হলের প্রায় সতেরোটি কক্ষে চুরির ঘটনা ঘটেছে। তবে শিক্ষার্থীরা হলে না থাকায় ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

শনিবার (১২ জুন) প্রীতিলতা হলের প্রাধ্যক্ষ আয়শা সিদ্দিকা কাছে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

হল কর্তৃপক্ষ ও শিক্ষার্থী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকালে হলের ‘এ’ ব্লকের ২০১, ২০৩, ২১১, ২১৬, ২১৭, ৩০১ ও ৩০৫ এবং ‘বি’ ব্লকের ১১৩, ২০২, ২১২, ২১৩, ২২২, ৩০৯, ৪০৩, ৪১২ ও ৪২১ নম্বর কক্ষসহ একটি স্টোর রুমের দরজার তালা ভেঙে চুরির বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। পরে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীদেরকেও অবহিত তা করা হয়।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ ‘হলের নিরাপত্তা কর্মীদের যোগসাজশে পরিকল্পিতভাবে এ চুরির ঘটনা ঘটেছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বন্ধ ক্যাম্পাসে হলের নিরাপত্তায় যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় তারা এ সুযোগটি নিয়েছে।’

ভুক্তভোগী আবাসিক এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘হলে সার্বক্ষণিক গার্ড থাকে। এ ছাড়া তিনটি সিসিটিভি ক্যামেরা এবং দু জন হল সুপার হলে উপস্থিত থাকা সত্ত্বেও হলের সতেরোটি কক্ষের তালা ভেঙে চুরির ঘটনা মেনে নেওয়া যায়না। স্বল্পদিনের জন্যে বাসায় থাকবো ভেবে ল্যাপটপসহ গূরুত্বপূর্ণ জিনিস হলে রেখে এসেছিলাম। প্রশাসন এখন বলছে সিসিটিভি গুলো নাকি নষ্ট ছিল। দ্রুত এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের খুঁজে বের করার আহ্বান জানাচ্ছি।’

নাম প্রকাশ না করে ভুক্তভোগী আরেক শিক্ষার্থী বলেন, ‘হলের যে নিরাপত্তা ব্যবস্থা তাতে কোনোভাবেই তালা ভেঙে এতো গুলো কক্ষে চুরি করা সম্ভব নয়। আমার মনে হয় নিশ্চই এর পিছনে হলের গার্ড মামাদের হাত রয়েছে। তারা এ বিষয়টির সাথে জড়িত।’

এ প্রসঙ্গে প্রীতিলতা হলের প্রাধ্যক্ষ আয়শা সিদ্দিকা বলেন, ‘হলের চারজন গার্ড (পাহারাদার) লকডাউনে আটকে রয়েছেন। যারা আছেন তাদেরকে দিয়ে অভার ডিউটি করানো হচ্ছে। প্রতিদিনই আমরা হলের সকল নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখাশুনা করেছি। ঘটনার দিনও চেক করেছি। রাত ১২টার পর কোনো একটা সময় চুরির ঘটনাটি ঘটতে পারে। চুরি যাওয়া রুমগুলোতে ছোট তালা লাগানো ছিলো। যার কারণে হয়তো চুরি সহজ হয়েছে। আর তিনতলার কোন একটি রুমে বিছানার উপর ল্যাপটপ রাখা ছিলো। সেটা তেমনই আছে, চোর নেয়নি। তাই আমরা আশা করছি বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছি এবং বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি।’ এ ঘটনায় চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এদিকে দীর্ঘ এ বন্ধে শিক্ষার্থীরা আবাসিক হল থেকে তাদের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নেওয়ার ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে দাবি জানালেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এ বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করেছে।

উল্লেখ্য, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে চুরির ঘটনা নতুন নয়। বিভিন্ন সময় হলে চুরির ঘটনা ঘটেছে। গত রমজানেও প্রীতিলতা হলে চুরি ঘটনা ঘটেছিল।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/