• বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০৬:৩৪ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
গৃহহীন অসহায় মমতাজকে টিম হাসিমুখের ঘর উপহার! বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে ঢাকাসহ সারাদেশে যুবলীগের বিক্ষোভ দেশজুড়ে দৃষ্টিনন্দন ইসলামি ভাস্কর্য রামগঞ্জে দল্টা বাঙ্গালী ব্লাড ডোনার্স ক্লাবের উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পিং নকল আওয়ামী লীগের ভিড়ে হারিয়ে যাচ্ছে আসল আওয়ামীলী লীগ’ বসুরহাট পৌরসভার জনকল্যাণে নিবেদিতপ্রাণ আবদুল কাদের মির্জা ‘তুরস্কের আঙ্কারায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে’ যুবলীগ সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার থানায় জিডি ভাস্কর্য বিরোধীতার আগে শিশু বলাৎকার বন্ধ করুন: ডা. জাফরুল্লাহ কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি হাসান ইমাম রাসেল’র জন্মদিন উদযাপন

খানসামার করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া লোকটির লাশ ঢুকতে বাধা, জানাযা ও দাফন সম্পন্ন করলো ইউএনও ও ওসি ।

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২১ এপ্রিল, ২০২০


তারিকুল ইসলাম চৌধুরী, নিজেস্ব প্রতিবেদক, দিনাজপুর ।।
দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার ভাবকী ইউনিয়নের রামনগর এলাকার এক ব্যক্তি
করোনার উপসর্গ নিয়ে নরসিংদীতে মৃত্যুবরণকারী ব্যক্তিটির লাশ কাফন,
জানাযা, দাফন  কাজ  ইউএনও এবং ওসির তত্ত্বাবধায়নে সম্পন্ন হয়েছে। গত ২০
শে এপ্রিল সোমবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার ভাবকী ইউনিয়নের রামনগর এলাকায়
ওই মৃত ব্যক্তিকে দাফন করা হয়।

মৃত ব্যক্তির পরিবারের সদস্যরা জানান, কফিল উদ্দিন(৬০)  নরসিংদীতে কাজ
করতে যান। সেখানে রবিবার করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান। সোমবার সকালের
মধ্যেই লাশ এলাকায় আসলে এলাকাবাসী লাশ এলাকায় ঢুকতে দেয়নি। পরে মৃতদেহটি
দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

খবর পেয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান সফিকুল ইসলাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে
অবহিত করেন। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও খানসামা থানার অফিসার
ইনচার্জ মৃতদেহটি এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে নিয়ে এসে
বাড়ির পাশেই কবরস্থানে দাফনকার্য সম্পন্ন করেন।

এ বিষয়ে খানসামা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ কামাল হোসেন বলেন, ‘আমরা
যখন খবর পেয়েছি নরসিংদীতে মারা যাওয়া কফিল উদ্দিন নামের ওই ব্যক্তির লাশ
এলাকায় ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না, তখন আমরা লাশ এলাকায় নিয়ে আসার ব্যবস্থা
করি।
খানসামা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  আহমেদ মাহবুব-উল ইসলাম বলেন,গতকাল
রবিবার করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান কফিল উদ্দিন। আমাদের তত্ত¡াবাবধায়নে
উপজেলায় যে করোনাভাইরাস প্রতিরোধের কমিটি আছে তাদের মধ্যে ৪ জন ব্যক্তিকে
নিয়ে জানাজা ও দাফন কার্য সম্পন্ন করি। মৃত ব্যক্তির দুই ছেলের মধ্যে এক
ছেলে ও এক নাতি জানাযায় উপস্থিত ছিলেন। মৃত ব্যক্তির করোনা হয়েছিল কিনা এ
জন্য নমুনা সংগ্রহ করেছি। নমুনার ফলাফল আসলেই বোঝা যাবে প্রকৃত বিষয়টি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

http://digitalbangladesh.news/