• বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ১১:১২ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
গভীর চক্রান্তে হজ্জ, মুসলিম সেজে বোরকা পরে মদিনায় মহিলা সেকশনে পুরুষ ইহুদী চর প্রকৌশলীকে শাস্তির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর খালেদাকে মুক্ত করতে হলে রাজপথে আন্দোলন করতে হবে : শামসুজ্জামান দুদু খুনী তারেক জিয়ার ফাঁসি হলে শরীরে বয়ে চলা ১৮০০ স্প্লিন্টারের যন্ত্রণা জুড়াবে মাহবুবার নেত্রীকে দেখার পর যেন প্রাণটা ফিরে পেলাম আল্লাহর মাইর দুনিয়ার বাইর: প্রধানমন্ত্রী মিয়ানমারে বিদ্রোহীদের সঙ্গে সংঘর্ষ, ৩০ সেনা নিহত কোম্পানীগঞ্জে পুলিশের বাল্য বিয়ে বন্ধ, কনের পিতার ৩০ হাজার টাকা অর্থদন্ড কবিরহাটে চোরাই মোটরসাইকেলসহ র‌্যাবের হাতে ছাত্রলীগ সভাপতি আটক ২১শে অগাস্টের গ্রেনেড হামলা: যেভাবে রক্ষা পেয়েছিলেন শেখ হাসিনা

আজ জনপ্রিয় কথাশিল্পী হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০১৯
বাংলা সাহিত্যের জনপ্রিয় কথাশিল্পী ও চলচ্চিত্রকার হুমায়ূন আহমেদের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। দিনটি উপলক্ষে হুমায়ূন আহমেদের পরিবারের পক্ষ থেকে নুহাশপল্লীতে নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে। লেখকের ছোট ভাই রম্যলেখক ও কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব জানান, সকালে তিন বোন ও স্ত্রীকে নিয়ে নুহাশপল্লীতে লেখকের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন তাঁরা। সকালে লেখকের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাবে ভক্তদের সংগঠন হিমু পরিবহন। হুমায়ূন আহমেদ ১৯৪৮ সালের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবার নাম ফয়েজুর রহমান। মা আয়েশা ফয়েজ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াকালীন তাঁর লেখালেখির শুরু। ১৯৭২ সালে প্রকাশিত হয় প্রথম উপন্যাস নন্দিত নরকে। ১৯৭৪ সালে প্রকাশিত হয় দ্বিতীয় উপন্যাস শঙ্খনীল কারাগার। বই দুটি প্রকাশের পর শক্তিশালী লেখক হিসেবে পাঠকমহলে সমাদৃত হন তিনি। তাঁর মোট প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা দুই শতাধিক। হুমায়ূন আহমেদ দীর্ঘ প্রায় পাঁচ দশক লেখালেখির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তাঁর লেখায় বাঙালি সমাজ ও জীবনধারার গল্প ভিন্ন আঙ্গিকে উপস্থাপিত হয়েছে। তিনি সৃষ্টি করেছিলেন গল্প বলার এক নিজস্ব ভাষাভঙ্গি। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বেশ কয়েকটি উপন্যাস লিখেছেন, নির্মাণ করেছেন নাটক ও চলচ্চিত্র। হুমায়ূন আহমেদ শিক্ষকতা করেছেন। কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রভাষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। পরে যোগ দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। লেখালেখিকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করে শিক্ষকতা থেকে অবসর নেন। সাহিত্যে অবদানের জন্য হুমায়ূন আহমেদ একুশে পদক, বাংলা একাডেমি পুরস্কার, লেখক শিবির পুরস্কার, মাইকেল মধুসূদন পদকসহ অনেক পুরস্কার লাভ করেন। ২০১১ সালে ক্যানসার ধরা পড়লে পরের বছরের মাঝামাঝি সময় যুক্তরাষ্ট্রের একটি হাসপাতালে তাঁর অস্ত্রোপচার করা হয়। চিকিৎসকদের সর্বোচ্চ চেষ্টাতেও বাঁচানো যায়নি জনপ্রিয় এই লেখককে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..